বাড়ি > ময়দান > জহুরি হিরে চেনে- আট বছর বয়সেই পৃথ্বী পেয়েছিলেন মাস্টার ব্লাস্টারের গাইডেন্স
সচিন ও পৃথ্বী
সচিন ও পৃথ্বী

জহুরি হিরে চেনে- আট বছর বয়সেই পৃথ্বী পেয়েছিলেন মাস্টার ব্লাস্টারের গাইডেন্স

অল্প বয়স থেকেই সচিনের নেকনজরে এই মুম্বইয়ের ক্রিকেটার। 

সচিন তেন্ডুলকরের মতো কিংবদন্তি ক্রিকেটারের সান্নিধ্য পাওয়া কত ভাগ্যের বিষয়, সেটা আলাদা করে বলে দেওয়ার প্রয়োজন হয় না। সেদিক থেকে পৃথ্বী শ'কে অত্যন্ত সৌভাগ্যবান বললেও কম বলা হবে। কেননা, ৮ বছর বয়স থেকে তেন্ডুলকরের নজরদারিতে ক্রিকেটার হিসেবে পরিণত হয়ে ওঠা টিম ইন্ডিয়ার তরুণ ওপেনারের।

ক'দিন আগেই সচিন জানিয়েছিলেন, সারা বছরে বেশ কয়েকবার পৃথ্বীর সঙ্গে তাঁর কথা হয়। যদিও ঠিক কী আলোচনা হয় দু'জনের মধ্যে, তা খোলসা করেননি মাস্টার ব্লাস্টার। শুধু জানিয়েছিলেন যে, একজন তরুণ ক্রিকেটার যখন তাঁর সাহায্য চান, তখন সে সম্পর্কে গোপনীয়তা বজায় রাখা উচিত বলে মনে করেন তিনি। সচিন এও বলেছিলেন যে, পৃথ্বী নিজে যদি এ-প্রসঙ্গে কোনও মন্তব্য করেন, তবে সেটা তাঁর ব্যক্তিগত বিষয়।

পৃথ্বী শ এতদিনে সচিনের সঙ্গে তাঁর আলোচনা প্রসঙ্গে মুখ খুললেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইভ সেশনে পৃথ্বী জানান, সচিন তেন্ডুলকর হলেন তাঁর মেন্টর। তাঁর পরিণত হয়ে ওঠার পিছনে সচিনের অবদান অনস্বীকার্য।

পৃথ্বী বলেন, 'আট বছর বয়সে আমি প্রথমবার সচিন স্যারের সঙ্গে দেখা করি। সেই থেকেই উনি আমার মেন্টর। মাঠের ও মাঠের বাইরের বহু বিষয় আমি সচিন স্যারের থেকে শিখেছি। মাঠে কী করা উচিত, সেসব ছাড়াও মাঠের বাইরের নিয়মানুবর্তিতা প্রভৃতি সবকিছুতেই সচিন স্যারের অবদান রয়েছে।'

পৃথ্বী আরও জানান, এখনও পর্যন্ত তেন্ডুলকর শত ব্যস্ততার মধ্যেও তাঁর অনুশীলন দেখার জন্য সময় বার করেন। যুব বিশ্বকাপজয়ী ভারত অধিনায়কের কথায়, 'এখনও পর্যন্ত আমি যখন অনুশীলন করি, সচিন স্যার আশেপাশে থাকলে আমার সঙ্গে এসে কথা বলেন। টেকনিক্যাল বিষয় নিয়ে যতটা না আলোচনা হয়, তার থেকে বেশি কথাবার্তা হয় ব্যাটিংয়ের মানসিক দিক নিয়ে।'

বন্ধ করুন