বাংলা নিউজ > ময়দান > 'নতুন স্বাদে' টোকিয়ো অলিম্পিক হচ্ছেই, দৃঢ়প্রত্যয়ী আয়োকজরা
'নতুন স্বাদে' টোকিয়ো অলিম্পিক হচ্ছেই, দৃঢ়প্রত্যয়ী আয়োকজরা। (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)
'নতুন স্বাদে' টোকিয়ো অলিম্পিক হচ্ছেই, দৃঢ়প্রত্যয়ী আয়োকজরা। (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)

'নতুন স্বাদে' টোকিয়ো অলিম্পিক হচ্ছেই, দৃঢ়প্রত্যয়ী আয়োকজরা

  • একেবারে ফ্রন্টফুটে নেমে যেন ব্যাট চালিয়ে ছক্কা হাঁকালেন অলিম্পিকের আয়োজকরা।

শুভব্রত মুখার্জি

পৃথিবীর ইতিহাসে এই ঘটনাকে বিরলতম ঘটনা বললেও অত্যুক্তি হবে না। গত বছর টোকিয়োর বুকে যে অলিম্পিক আয়োজনের কথা ছিল, তা করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে পিছিয়ে দেওয়া হয় ২০২১ সালে। তারপরেও করোনার কারনে নানা সময় 'গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ' অলিম্পিকের আয়োজন নিয়ে তৈরি হয়েছে জট।

তবে এবার একেবারে ফ্রন্টফুটে নেমে যেন ব্যাট চালিয়ে ছক্কা হাঁকালেন অলিম্পিকের আয়োজকরা। তাঁরা প্রত্যয়ের সঙ্গে ঘোষণা করলেন, করোনার প্রভাব যতই থাকুক, টোকিয়ো অলিম্পিক হবেই। এমনটাই জানিয়ে দিলেন টোকিয়ো গেমসের আয়োজক কমিটির প্রেসিডেন্ট ইওসিরো মোরি।

টোকিয়ো অলিম্পিক আয়োজন নিয়ে উদ্বেগের যে ঘনঘটা তৈরি হয়েছে, তাতে কিছুটা আশ্বাস মিলল। আর ছ’মাসেরও কম সময় হাতে রয়েছে অলিম্পিক আয়োজনের। তবু আশঙ্কার মেঘ ঘিরে রয়েছে অলিম্পিককে। করোনার কারণে জাপানে আপাতত জারি আছে জরুরি অবস্থা।বিদেশি নাগরিক প্রবেশের ক্ষেত্রেও দেশে জারি করা রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। তার মধ্যেও অলিম্পিক আয়োজন করার মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক সংস্থা। আয়োজকরা জানিয়ে দিয়েছেন, প্রয়োজন পড়লে দর্শকশূন্যভাবে হলেও আয়োজিত হবে গেমস।

অলিম্পিক আয়োজন নিয়ে জাপান সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলেন আয়োজকরা। গেমসের আয়োজন নিয়ে কার্যত সিদ্ধান্ত নেওয়ার হয়ে গিয়েছে এই সভায় বলে সূত্রের খবর। এই প্রসঙ্গে মোরি বলেছেন, ‘করোনা যতই উদ্বিগ্ন করে রাখুক না কেন গেমস আয়োজন করবই। এই আত্মবিশ্বাস নিয়েই এগোচ্ছি। একটা নতুন স্বাদের অলিম্পিকের জন্য তৈরি হোক বিশ্ববাসী।'

বন্ধ করুন