বাংলা নিউজ > ময়দান > লা লিগায় বর্ণবিদ্বেষের প্রতিবাদে মাঠ ছাড়লেন ভ্যালেন্সিয়ার ফুটবলাররা
বর্ণবিদ্বেষের প্রতিবাদে মাঠ ছাড়ছেন ভ্যালেন্সিয়া অধিনায়ক জোসে গায়াসহ বাকিরা। ছবি- ফেসবুক (ভ্যালেন্সিয়া)
বর্ণবিদ্বেষের প্রতিবাদে মাঠ ছাড়ছেন ভ্যালেন্সিয়া অধিনায়ক জোসে গায়াসহ বাকিরা। ছবি- ফেসবুক (ভ্যালেন্সিয়া)

লা লিগায় বর্ণবিদ্বেষের প্রতিবাদে মাঠ ছাড়লেন ভ্যালেন্সিয়ার ফুটবলাররা

  • কাডিসের বিরুদ্ধে লিগের ম্যাচ চলাকালীন ৩০ মিনিটের মাথায় ভ্যালেন্সিয়ার ফরাসি ডিফেন্ডার মুক্তার ডিয়াখাবি ও কাডিসের হুয়ান কালা বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন।

রবিবার এক অপ্রীতিকর ঘটনার সাক্ষী থাকল লা লিগা। সতীর্থকে বর্ণবিদ্বেষমুলক মন্তব্য করার প্রতিবাদে মাঠ ছেড়ে উঠে গেলেন ভ্যালেন্সিয়া দলের ফুটবলাররা। কাডিসের বিরুদ্ধে লিগের ম্যাচ চলাকালীন ৩০ মিনিটের মাথায় ঘটনাটি ঘটে।

ভ্যালেন্সিয়ার ফরাসি ডিফেন্ডার মুক্তার ডিয়াখাবি ও কাডিসের হুয়ান কালা বাকবিতন্ডতায় জড়িয়ে পড়েন। ডিয়াখাবিকে স্পষ্টতই অস্বস্তিতে দেখায়। ২৪ বছর বয়সী ফুটবলার তারপরেই বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্যাের কথা জানান সতীর্থদের। প্রতিবাদে সকল ভ্যালেন্সিয়া ফুটবলাররা ম্যাচের ফলাফলের পরোয়া না করেই মাঠ ছাড়েন। খেলা বন্ধ থাকে ১৫ মিনিট।

পরে ডিয়াখাবির অনুরোধে তাঁর সতীর্থরা পুনরায় মাঠে নামেন। তিনি অবশ্য আর মাঠে ফেরেননি। ভ্যালেন্সিয়া ক্লাব আধিকারিক ও ফুটবলাররা ডিয়াখাবির পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দেন। ম্যাচ শেষে ভ্যালেন্সিয়া অধিনায়ক হোসে গায়া বলেন, ‘ডিয়াখাবি আমাদের জানান ওকে অপমান করা হয়েছে এবং তার প্রতিবাদেই আমরা মাঠ ছাড়ি। পরবর্তীতে আমাদের জানানো হয় আমরা মাঠে না ফিরলে আমাদের তিন পয়েন্ট কেটে নেওয়া হতে পারে। ডিয়াখাবি বলাতেই আমরা আবার মাঠে ফিরি, ওর অনুমতি ছাড়া আমরা ফিরতাম না।’

যদিও অবশেষে লা লিগায় এ বছরই উঠে আসা কাডিস স্পেনের চতুর্থ সর্বোচ্চ সমর্থিত দল ভ্যালেন্সিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়ে দেয়। তবে এটি কোন বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। চলতি মরশুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রেফারির করা বর্ণবিদ্বেষেী মন্তব্যের প্রতিবাদে প্যারিস সাঁ-জাঁ এবং ইস্তানবুল বাসাকশহির, উভয় দলের ফুটবলাররাই মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছিলেন। এদিনের ঘটনা সেই স্মৃতিকেই আরেকবার মনে করিয়ে দিল।

সারা বিশ্বজুড়ে বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে চলছে প্রতিবাদ। ফুটবলজগতও এর বাইরে নয়। প্রিমিয়র লিগ-সহ বিভিন্ন বড় বড় টুর্নামেন্টে প্রতি ম্যাচের আগে খেলোয়াড়রা হাঁটু গেড়ে বসে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। নেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের ব্যাবস্থা। প্রাক্তন ফরাসী তারকা ফুটবলার থিয়রি অঁরি, তাঁর সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেন সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিনিয়ত ধেয়ে আসা কটুক্তির প্রতিবাদে। তবে এসবে লাভের লাভ কিছু হচ্ছে কি?

একুশ শতকে এখনও জীবনের নানা ক্ষেত্রে বর্ণবিদ্বেষের উপস্থিতি প্রমাণ দেয় এখনও মানুষ হিসাবে আমাদের অনেকটা পথ চলা বাকি।

বন্ধ করুন