বাংলা নিউজ > ময়দান > সেঞ্চুরিয়নে কেন হারল দক্ষিণ আফ্রিকা? কারণ ব্যাখ্যা করলেন প্রাক্তন প্রোটিয়া ব্যাটার কালিনান

সেঞ্চুরিয়নে কেন হারল দক্ষিণ আফ্রিকা? কারণ ব্যাখ্যা করলেন প্রাক্তন প্রোটিয়া ব্যাটার কালিনান

প্রাক্তন প্রোটিয়া ব্যাটার কালিনান 

ভারতের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে বাজে পারফরম্যান্সের পর প্রাক্তন প্রোটিয়া ব্যাটার ডারিল কালিনান দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং ইউনিটের উপর নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করলেন।

ভারতের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে বাজে পারফরম্যান্সের পর প্রাক্তন প্রোটিয়া ব্যাটার ডারিল কালিনান দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং ইউনিটের উপর নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করলেন। সেঞ্চুরিয়নের দুই ইনিংসে যথাক্রমে ১৯৭ এবং ১৯১ রানে গুটিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। দক্ষিণ আফ্রিকা সেঞ্চুরিয়নে প্রথমবার ভারতের কাছে পরাজিত হয়। প্রথম ইনিংসে মাত্র ৩০ রানের মধ্যে চার টপ অর্ডার ব্যাটারকে হারানো থেকে শুরু করে পঞ্চম দিনে ৬৬ রানে ছয়টি গুরুত্বপূর্ণ উইকেটের পতনকে কিছুতেই মানতে পারছেন না দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন ক্রিকেটার। কালিনানের মতে ব্যাটিংয়ের ভুলেই ডুবেছে দল।

প্রাক্তন মিডল-অর্ডার ব্যাটার কালিনানের মতে, দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিংয়ে বড় ধরনের প্রযুক্তিগত সমস্যা রয়েছে। ESPNcricinfo-এর সঙ্গে কথোপকথনের সময়, ৫৪ বছর বয়সী ডারিল কালিনান রাবাদাদের ব্যাটিং ত্রিটির কথা তুলে ধরেন।  লাল বলের ক্রিকেটে, বর্তমান দক্ষিণ আফ্রিকা দলের পদ্ধতির সমালোচনা করেন তিনি। কালিনান বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকা দুবার খারাপ ব্যাটিং করেছে। আমি মনে করি তাদের কৌশলগত বড় সমস্যা রয়েছে। আমি মনে করি না যে দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট ক্রিকেটের এই ম্যাচে নিজেদের ভালো ব্যাটিং ইউনিটের প্রদর্শন করেছে। এই ভেন্যুতে, সেঞ্চুরি আপনাকে সেট করতে পারে হবে (কেএল রাহুলের সেঞ্চুরির কথা উল্লেখ করে)।’ 

কালিনান স্বীকার করেছেন যে টেস্ট ক্রিকেটের মৌলিক নীতি দক্ষিণ আফ্রিকা প্রয়োগ করেনি। প্রাক্তন প্রোটিয়া ব্যাটার বলেন, ‘আমি মনে করি না দক্ষিণ আফ্রিকা লাল বলের ক্রিকেটের আসল নীতি অনুসরণ করছে। অর্থাৎ একটি সাইডওয়ে খেলা। এই তত্ত্ব অনুসরণ করে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটাররা এটা বিশ্বাস করে যে আপনি অফ-স্টাম্পে ব্যাট করছেন মানে আপনি ক্রিজের বাইরে ব্যাট করছেন। আমি এটা দেখেছি। বছরের পর বছর ধরে এই তত্ত্বটি ত্রুটিপূর্ণ। এর সাথে সমস্যা হল আপনার অফ স্টাম্প কোথায় আছে আপনি বুঝতে পারেন না। বোলারদের এখন ডিআরএস থাকায় আপনি এলবিডব্লিউ এড়াতে পারবেন না।’

বন্ধ করুন