বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > কার্তিক মাসে এই সাতটি নিয়ম পালনে সম্ভব মোক্ষ লাভ
এই মাস দীপদানের মাহাত্ম্য সম্পর্কে বিষ্ণু ব্রহ্মাকে, ব্রহ্মা নারদকে ও নারদ রাজা পৃথুকে অবগত করিয়ে ছিলেন।
এই মাস দীপদানের মাহাত্ম্য সম্পর্কে বিষ্ণু ব্রহ্মাকে, ব্রহ্মা নারদকে ও নারদ রাজা পৃথুকে অবগত করিয়ে ছিলেন।

কার্তিক মাসে এই সাতটি নিয়ম পালনে সম্ভব মোক্ষ লাভ

  • সাতটি নিয়ম আছে যা কার্তিক মাসে পালিত হওয়া উচিত বলে ধর্মশাস্ত্রে উল্লিখিত রয়েছে। এই সমস্ত নিয়ম পালনের ফলে সুখ লাভ হয়।

হিন্দু ধর্মে কার্তিক মাসের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। এ মাসে ব্রত পালনের সুফল সম্পর্কে ধর্মশাস্ত্রে উল্লেখ রয়েছে। কথিত আছে, সংযমী হয়ে সমস্ত নিয়মনীতি পালন করলে মোক্ষ লাভ সম্ভব। এমন সাতটি নিয়ম আছে যা কার্তিক মাসে পালিত হওয়া উচিত বলে ধর্মশাস্ত্রে উল্লিখিত রয়েছে। এই সমস্ত নিয়ম পালনের ফলে সুখ লাভ হয়। এই মাস বিষ্ণু ও লক্ষ্মীর অত্যন্ত প্রিয়। 

  • ধর্মশাস্ত্রে কার্তিক মাসে দীপদানের গুরুত্ব স্বীকার করা হয়েছে। পুরাণ অনুযায়ী, এই মাস দীপদানের মাহাত্ম্য সম্পর্কে বিষ্ণু ব্রহ্মাকে, ব্রহ্মা নারদকে ও নারদ রাজা পৃথুকে অবগত করিয়েছিলেন। এই মাসে কোনও নদী বা পুকুরে দীপদান করা উচিত।
  • সনাতন হিন্দু ধর্মে তুলসী পুজো গুরুত্বপূর্ণ বলা হয়েছে। কার্তিক মাসে তুলসীর পুজো আরও গুরুত্ব অর্জন করে, কারণ তুলসী বিষ্ণুর প্রিয়। তাই এই মাসে নিয়মিত তুলসী পুজো করা উচিত। এ সময় তুলসী দানেরও মাহাত্ম্য রয়েছে।
  • কার্তিক মাসে ভূমিতে শয়নের বিধানও রয়েছে। ভূমিতে শয়নের ফলে মনে সাত্বিক ভাব বজায় থাকে।
  • আবার এই মাসে শরীরে তেল লাগানো উচিত নয়। এই মাসে শুধু মাত্র নরক চতুর্দশীর দিনে তেল লাগানো যেতে পারে।
  • আবার ডাল খাওয়াও এই সময় বর্জিত। এই সময়ে মুগ, মুসুর, বিউলি, মটর ইত্যাদি খাওয়া উচিত নয়।
  • এই মাসকে ব্রত ও তপের মাস বলা হয়েছে। তাই এ সময় ব্রহ্মচর্য পালন করা উচিত। কথিত আছে, এই মাসে ব্রহ্মচর্য পালন না-করলে অশুভ ফল লাভ হয়।
  • শরীর ও মনে সংযম ধরে রাখার মাস এটি। তাই এ মাসে কারও নিন্দা করা বা কাউকে অপশব্দ বলা উচিত নয়। মনে নিয়ন্ত্রণ রাখা উচিত।

বন্ধ করুন