বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পুলিশের জালে ভুয়ো আধার কার্ড চক্রের আরও এক পাণ্ডা
প্রতীকী ছবি ছবি সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস।
প্রতীকী ছবি ছবি সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস।

পুলিশের জালে ভুয়ো আধার কার্ড চক্রের আরও এক পাণ্ডা

ধৃতের কাছ থেকে একটি ল্যাপটপ, স্ক্যানার, প্রিন্টার, ৬টি মোবাইল ও একটি ক্যামেরা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এছাড়াও একটি বায়োমেট্রিক স্ক্যানারও পাওয়া গিয়েছে।

‌ফের পুলিশের পাতা ফাঁদে ধরা দিল জাল আধার কার্ড চক্রের আরও এক পাণ্ডা। সোমবার রাতে সাগরদিঘি থেকে তিনজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আরও একজনকে ধরে ফেলল পুলিশ। তবে এবার তাঁকে গ্রেফতার করা হল মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ থেকে। বুধবার অভিযুক্তকে পুলিশি হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ। ধৃতের কাছ মোবাইল-সহ আরও বেশ কিছু জিনিস উদ্ধার করা হয়েছে। গত সোমবার গ্রেফতার হওয়া অভিযুক্তদের সঙ্গে এর কোনও যোগসূত্র আছে কিনা, তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্ত যুবকের নাম মোক্তার হোসেন। তাঁর বাড়ি সামশেরগঞ্জের হাউস নগরে। ধৃতের কাছ থেকে একটি ল্যাপটপ, স্ক্যানার, প্রিন্টার, ৬টি মোবাইল ও একটি ক্যামেরা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এছাড়াও একটি বায়োমেট্রিক স্ক্যানারও পাওয়া গিয়েছে। এদিন ধৃতকে আদালতে তোলা হলে তাঁকে ৭ দিনের পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। তদন্তকারী অফিসার জানিয়েছেন, জেরায় অভিযুক্ত স্বীকার করেছে যে সে জাল আধার কার্ড ও ভোটার কার্ড তৈরি করত। পাশাপাশি সে জাল সিম কার্ডও তৈরি করত বলে জানিয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের মতে, এই অবৈধ কাজ অনেকদিন ধরেই এলাকায় চালাত ওই যুবক। বিশ্বস্ত সূত্রে খবর পেয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মোক্তারের দোকানে হানা দেয় পুলিশ। মুর্শিদাবাদ জেলায় যে জাল আধার কার্ড ও জাল ভোটার কার্ডের চক্র গড়ে উঠেছে, সেকথা পুলিশের কাছে অনেকদিন ধরেই ছিল। পুলিশ সেই অনুযায়ী খোঁজ খবরও নিতে শুরু করে। শেষ পর্যন্ত গত সোমবার রাতে সাগরদিঘি থেকে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। অভিযুক্তদের কাছ থেকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে একাধিক কম্পিউটার, ফিঙ্গার প্রিন্টের যন্ত্র-সহ একাধিক কাগজপত্র।

বন্ধ করুন