প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

মাঝ রাতে প্রেমিকের ফোনে বাড়ি থেকে বেরোলেন গৃহবধূ, সকালে পুকুরে মিলল দেহ

  • সোমবার সকালে বাড়ির লোকেরা ঘুম থেকে উঠে দেখেন, দরজা বাইরে থেকে বন্ধ। তখন পড়শিরা এসে খবর দেন, পুকুর থেকে উদ্ধার হয়েছে পম্পার দেহ।

মাঝরাতে ফোন করে ডেকে নিয়ে গিয়ে গৃহবধূকে খুন করল তার প্রেমিক। ঘটনা পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের খেড়ুর গ্রামের ঘোষপাড়ার। মঙ্গলবার সকালে প্রথমে পুকুর থেকে উদ্ধার হয় পম্পা রায় নামে গৃহবধূর দেহ। কিছু দূরে বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় তাঁর প্রেমিক জয়ন্ত সিংয়ের দেহ। ঘটনায় গ্রামে চাঞ্চল্য ছড়ায়। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান। পম্পাকে পিটিয়ে খুন করে আত্মঘাতী হয়েছেন জয়ন্ত। দেহ দু’টি উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ছাতনি গ্রামের বাসিন্দা পম্পার স্বামী সৃষ্টিধর রায় চাষবাস করেন। দম্পতির ২টি সন্তান রয়েছে। গত ৩ বছর ধরে তাঁর পাশের ঘোষপাড়ার জয়ন্ত সিংয়ের সঙ্গে পরকীয়া ছিল। গত বছর স্বামীকে ছেড়ে জয়ন্তর সঙ্গে পালিয়েও গিয়েছিলেন পম্পা। কিন্তু পরে মেয়ে তাঁকে বুঝিয়ে ফেরত আনে। সেই থেকে স্বামীর সঙ্গে ঘর করছিলেন তিনি।

মঙ্গলবার সকালে বাড়ির লোকেরা ঘুম থেকে উঠে দেখেন, দরজা বাইরে থেকে বন্ধ। তখন পড়শিরা এসে খবর দেন, পুকুর থেকে উদ্ধার হয়েছে পম্পার দেহ। পরে বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় জয়ন্তর দেহ। পম্পার হাত বাঁধা ছিল বলে জানা গিয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, কুপিয়ে খুন করে পম্পার দেহ পুকুরে ফেলে দিয়েছে জয়ন্ত।

সোমবার রাতে মেয়ের পাশেই শুয়ে ছিলেন পম্পা। পরিজনদের অনুমান, জয়ন্তর ফোন পেয়ে দরজা বাইরে থেকে বন্ধ করে বেরিয়ে যান তিনি। তখনও জানতেন না, প্রেমিকই হয়ে উঠেছে আততায়ী।



বন্ধ করুন