বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অভিষেকের বিরুদ্ধে মন্তব্য করে কুণালের কটাক্ষের মুখে কল্যাণ
কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় (PTI)
কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় (PTI)

অভিষেকের বিরুদ্ধে মন্তব্য করে কুণালের কটাক্ষের মুখে কল্যাণ

  • কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মন্তব্যের সমালোচনা করে কুণাল ঘোষ বলেন,ল ‘দলের সর্বাধিনায়িকা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরেই রয়েছেন অভিষেক। তিনি কিছু বললে দলের সাধারণ সৈনিক হিসাবে আমাদের তা মুখ বুজে শোনা উচিত।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অবস্থানের ফের একবার প্রকাশ্য সমালোচনা করে তৃণমূলে ঝড় তুলে দিয়েছেন শ্রীরামপুরের সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার তাঁর মন্তব্যের সমালোচনা করেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। তাঁর দাবি, দলের সেকেন্ড ইন কম্যান্ড অভিষেক যা বলবেন, সবার তা মুখ বন্ধ করে শোনা উচিত।

সম্প্রতি নিজের সংসদীয় এলাকা ডায়মন্ত হারবারে সমস্ত রাজনৈতিক জমায়েত বন্ধ রাখার পক্ষে সওয়াল করেন অভিষেক। জানান, করোনা প্রতিরোধে এটাই একমাত্র কার্যকরী পদক্ষেপ। সঙ্গে বলেন, এটা তাঁর ব্যক্তিগত মত। অভিষেকের মন্তব্যের সমালোচনা করে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের কোনও ব্যক্তিগত মত থাকতে পারে না। অনেক বিষয়ে আমারও ব্যক্তিগত মত রয়েছে। কিন্তু দলের শৃঙ্খলার স্বার্থে তা প্রকাশ্যে বলা যায় না।’

কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মন্তব্যের সমালোচনা করে কুণাল ঘোষ বলেন,ল ‘দলের সর্বাধিনায়িকা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরেই রয়েছেন অভিষেক। তিনি কিছু বললে দলের সাধারণ সৈনিক হিসাবে আমাদের তা মুখ বুজে শোনা উচিত। তার মন্তব্যের ওপর কোনও মন্তব্য করার আগে সব দিক ভেবে দেখা উচিত।’

বলে রাখি, এবারই প্রথম নয়, গত মাসে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূলে ফের নিয়ে অভিষেকের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। ডোমজুড়ে প্রয়াত এক তৃণমূল নেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে তৃণমূলেরই বিক্ষোভের মুখে পড়েছিলেন রাজীববাবু। এর পর কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, রাজীব ২০২৪ সাল পর্যন্ত ত্রিপুরায় থাকবে বলে অভিষেকের সঙ্গে কথা হয়েছিল। ও এখানে কী করছে? বিয়ে বাড়ি, শ্রাদ্ধ বাড়ির নাম করে ওকে এলাকায় ঢুকতে দেব না।

 

বন্ধ করুন