বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আরও ২০ লক্ষ মহিলাকে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার, খোদ মিলবে মুখ্যমন্ত্রী হাত থেকে
লক্ষ্মীর ভাণ্ডার। ছবি সৌজন্য–এএনআই।

আরও ২০ লক্ষ মহিলাকে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার, খোদ মিলবে মুখ্যমন্ত্রী হাত থেকে

  • সোমবার নবান্ন সূত্রে খবর, নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়াম থেকে তা তুলে দেওয়া হবে। আর এই অর্থ তুলে দেবেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার জন্য নারী ও সমাজকল্যাণ দফতরকে নির্দেশ পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে।

তৃতীয়বারের সরকারের প্রথম বছরের বর্ষপূর্তি। ইতিমধ্যেই এই দিনটিকে মা–মাটি–মানুষ দিবস ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার আরও প্রায় ২০ লক্ষ মহিলাকে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা দেওয়া হতে পারে বলে সূত্রের খবর। এই টাকা দেবে রাজ্যের নারী ও সমাজকল্যাণ দফতর। সোমবার নবান্ন সূত্রে খবর, নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়াম থেকে তা তুলে দেওয়া হবে। আর এই অর্থ তুলে দেবেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার জন্য নারী ও সমাজকল্যাণ দফতরকে নির্দেশ পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে।

বিষয়টি ঠিক কী ঘটেছে?‌ একুশের নির্বাচনের আগে ইস্তেহারে ঘোষণা করা হয়েছিল লক্ষ্মী ভাণ্ডারের। আর ক্ষমতায় এসে তা বাস্তবায়িত করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্য সরকারের জনপ্রিয়তম প্রকল্পগুলির মধ্যে অন্যতম হয়ে ওঠে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার। বিপুল সংখ্যায় মহিলাদের এই প্রকল্পে নিয়ে আসা হয়েছে। বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনের মঞ্চ থেকেও ৫ লক্ষ নতুন উপভোক্তাকে এই লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা তুলে দেওয়া হয়েছে। এবার আরও বিপুল সংখ্যায় নতুন করে মহিলাদের হাতে এই টাকা তুলে দেওয়া হবে।

কবে, কোথায় তা হবে?‌ নবান্ন সূত্রে খবর, আগামী ৫ মে বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই নতুন করে ২০ লক্ষ মহিলাকে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের আওতাভুক্ত করার কথা ঘোষিত হবে। এমনকী কয়েকজনের হাতে টাকা তুলেও দেওয়া হবে। দুয়ারে সরকারের শিবিরে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পে ফর্ম জমা দিয়েও যাঁরা পাননি এবার তাঁদের অন্তর্ভূক্ত করা হবে।

আজ, জন্ম–মৃত্যু শংসাপত্র পেতে রাজ্য সরকারের নিজস্ব পোর্টাল খোলা হয়েছে। এখন আর কোথাও দৌড়াতে হবে না। স্বাস্থ্য দফতর নিজস্ব পোর্টাল তৈরি করেছে। আগামী ৫ মে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে তার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সবমিলিয়ে পরপর মাস্টারস্ট্রোক দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তা বলাই যায়।

বন্ধ করুন