বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > স্কুল বন্ধের পরই বড় নির্দেশিকা রাজ্যে, গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে পড়ুয়াদের জন্য
 (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এএনআই)
 (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এএনআই)

স্কুল বন্ধের পরই বড় নির্দেশিকা রাজ্যে, গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে পড়ুয়াদের জন্য

  • করোনা আবহে ২০২০ সালের ২৫ মার্চ দেশ জুড়ে লকডাউন শুরু হয়। সেই প্রথমে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে যায়।

সোমবার থেকে রাজ্যে ফের বন্ধ স্কুল। স্কুল শিক্ষা দফতরের তরফে নির্দেশিকা জারি করে জানানো হয়েছে, অনলাইনেই হবে ক্লাস। যদিও শিক্ষক–শিক্ষিকারা পঠন–পাঠন সংক্রান্ত পরামর্শ দিতে যাতে ছাত্রছাত্রীদের বাড়ি যান, সেই কথাও উল্লেখ করা হয়েছে নির্দেশিকায়। তবে এই বিষয়টি বাধ্যতামূলক না করে পরামর্শ হিসেবেই উল্লেখ করা হয়েছে।

রাজ্যে কড়া বিধিনিষেধ জারি হওয়ার পর স্কুল শিক্ষা দফতরের পক্ষ থেকে পাঁচ দফা নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। সেই নির্দেশিকায় অনলাইনে ক্লাস করানোর কথা বলা হয়েছে। পাশাপাশি যে সব স্কুলের হোস্টেল রয়েছে, সেগুলিকে বন্ধ রাখার কথা বলা হয়েছে। তবে যদি কোনও ছাত্র-ছাত্রী হোস্টেল থেকে যেতে না পারেন, তাঁরা যাতে চিকিৎসা পরিষেবা ঠিকমতো পেতে পারেন, সেই ব্যবস্থা রাখার কথাও বলা হয়েছে নির্দেশিকায়। তবে স্কুল বন্ধ থাকলেও মিড ডে মিল দেওয়ার প্রক্রিয়া চালু থাকবে। একইসঙ্গে ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সি ছাত্র-ছাত্রীদের ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ চলবে। পাশাপাশি বই-খাতা স্কুলের মাধ্যমে শুধুমাত্র অভিভাবকদের দেওয়া হবে।

করোনা আবহে ২০২০ সালের ২৫ মার্চ দেশজুড়ে লকডাউন শুরু হয়। সেই প্রথমে স্কুল–কলেজ–বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে যায়। এরপর দীর্ঘ ৯ মাস বন্ধ থাকার পর পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও পুরোদমে স্কুল কোনওদিনই খোলেনি। গত বছর নভেম্বর মাস থেকে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্য স্কুলের দরজা খুললেও নীচু ক্লাসগুলির পঠন পাঠন শুরুই হয়নি। এই পরিস্থিতিতে করোনা সংক্রমণের হার বেড়ে যাওয়ায় ফের স্কুল বন্ধের পথেই হেঁটেছে প্রশাসন।

বন্ধ করুন