বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অমৃতসর মেলে ভয়াবহ চুরি, বিপাকে পড়ল বাংলার জিমন্যাস্টিক্স দল
বাংলার জিমন্যাস্টিক্স দল।

অমৃতসর মেলে ভয়াবহ চুরি, বিপাকে পড়ল বাংলার জিমন্যাস্টিক্স দল

  • বাংলার ২৭ জন খেলোয়ারের দলের অভিযোগ, এই ঘটনায়‌ রেল পুলিশ, টিটি বা রেলের অন্য কোনও আধিকারিক ন্যূনতম সাহায্য করেননি। এখনও পর্যন্ত নেওয়া হয়নি এফআইআর। বিহারের মোঘলসরাই ও পাটনা জিআরপি সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছিল।

পঞ্চকুলায় ‘খেলো ইন্ডিয়া’ জিমন্যাস্টিকসে অংশ নিতে যাচ্ছিল বাংলার জিমন্যাস্টিক্স দল। অনূর্ধ্ব–১৭ মহিলা ও পুরুষ দলের খেলোয়াড়রা বৃহস্পতিবার রাতে অমৃতসর মেলে আম্বালার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। শুক্রবার ভোররাতে মোকামা–পাটনা শাহিব স্টেশনের মাঝে দলের ম্যানেজার দিলীপ দাস এবং অপর কর্তা অংশুমান মুখোপাধ্যায়ের স্যুটকেস চুরি যায়। বাংলা দলের অনুমান, রাত আড়াইটে থেকে সাড়ে তিনটের মধ্যে এই ঘটনা ঘটেছে।

ঠিক কী অভিযোগ উঠেছে? বাংলার ২৭ জন খেলোয়ারের দলের অভিযোগ, এই ঘটনায়‌ রেল পুলিশ, টিটি বা রেলের অন্য কোনও আধিকারিক ন্যূনতম সাহায্য করেননি। এখনও পর্যন্ত নেওয়া হয়নি এফআইআর। বিহারের মোঘলসরাই ও পাটনা জিআরপি সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছিল। গোটা কামরার ভিডিও রেকর্ডিংও করেন ওঁরা। কিন্তু সাহায্যের আশ্বাস দেওয়া হলেও এফআইআর নেওয়া হয়নি। আজ, শনিবার অম্বালা ক্যান্টনমেন্টে নেমে এফআইআর করতে হবে।

কী কী খোয়া গিয়েছে?‌ খেলোয়ার দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এখানে ছিল ২৭ জন জিমন্যাস্টদের বয়সের প্রমাণপত্র–সহ প্রতিযোগিতার যাবতীয় নথি এবং এক লক্ষেরও বেশি টাকা। এসি টু টিয়ার হলেও কামরাটি ছিল ভিড়ে ঠাসা। টিকিট পরীক্ষক, আরপিএফ, অ্যাটেনডেন্ট কাউকেই খুঁজে পাওয়া যায়নি। ৫, ৬ ও ৭ তারিখ টুর্নামেন্ট হবে। ৮ তারিখ কলকাতা রওনা হওয়ার কথা দলের সদস্যদের।

ঠিক কী বলছেন বাংলার ম্যানেজার?‌ জিমন্যাস্টিক্সের আন্তর্জাতিক বিচারক অংশুমান বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলার ম্যানেজার। তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে খাওয়ার অর্থ নেই। অল্প বয়সী ছেলেমেয়েদের নিয়ে আমরা দিশাহারা। সংশ্লিষ্ট প্রতিযোগিতায় ওদের অংশগ্রহণ অনিশ্চিত। কোনও সহায়তা পেলাম না। বাংলা মহিলা দলের আন্তর্জাতিক বিচারক গোপা দাসের ফোন খোয়া গিয়েছে। তাঁর ফোনে রিং হলেও সেটার লোকেশন ট্র্যাক করার কোনও ব্যবস্থাই হল না। কোনও সুরাহা পেলাম না।’ উল্লেখ্য, গত বছর মেয়েদের বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলা।

বন্ধ করুন