বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জীবদ্দশায় অপরাধী ধরা পড়বে বলে মনে হয় না, হতাশার সুর অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের কণ্ঠে

জীবদ্দশায় অপরাধী ধরা পড়বে বলে মনে হয় না, হতাশার সুর অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের কণ্ঠে

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। 

এই কথা শুনে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় জানান, বেশ কয়েকবছর আগে একবার ভিনরাজ্য থেকে ট্রেনে ফিরছিলেন তখন এক ব্যক্তি তাঁকে প্রশ্ন করেন, পশ্চিমবঙ্গে না কি টাকার বিনিময়ে কলেজে ভর্তি হয়।

শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলার শুনানির ফাঁকে বিস্ফোরক মন্তব্য বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের। তাঁর আক্ষেপ, জীবদ্দশায় অপরাধী ধরা পড়বে বলে মনে হয় না। সঙ্গে তিনি বলেন, আমাদেরই বিষয়টি সামলে নিতে হবে।

এদিন শিক্ষা সংক্রান্ত একটি মামলার শুনানি চলাকালীন, বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে হাজির এক ব্যক্তি বলেন, নাকতলায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের পোষ্য কুকুরের জন্য যে একটি ফ্ল্যাট রয়েছে তা তিনি জানতেন। কিন্তু এব্যাপারে কেউ কোনও পদক্ষেপ করতে পারে তা বিশ্বাস হয়নি।

এই কথা শুনে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় জানান, বেশ কয়েকবছর আগে একবার ভিনরাজ্য থেকে ট্রেনে ফিরছিলেন তখন এক ব্যক্তি তাঁকে প্রশ্ন করেন, পশ্চিমবঙ্গে না কি টাকার বিনিময়ে কলেজে ভর্তি হয়। বিচারপতি বলেন, ‘এই প্রশ্ন শুনে আমার মাথা হেঁট হয়ে গিয়েছিল’। তিনি আরও বলেন, কলেজে ভর্তির জন্য আমার এক পরিচিতের কাছ থেকে ২.৫ লক্ষ টাকা দাবি করা হয়েছিল। এর পরই বিচারপতির কণ্ঠে শোনা যায় হতাশার সুর। তিনি বলেন, ‘জীবদ্দশায় অপরাধী ধরা পড়বে বলে মনে হয় না। তবে আমাদের সামলে নিতে হবে’।

প্রশ্ন উঠছে, তবে কি তদন্তকারী সংস্থার ওপর আস্থা রাখতে পারছেন না খোদ বিচারপতি। না কি তাঁর অনুমান, রাজনীতিকে হাতিয়ার করে পার পেয়ে যাবেন অপরাধীরা? না কি বিচারব্যবস্থার স্লথগতিতে বিরক্ত তিনি?

 

বন্ধ করুন