বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > ট্যাক্সির ডিকিতে কুমড়ো সরাতেই উদ্ধার বৃদ্ধার দেহ, আটক চালক–সহ ৪
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

ট্যাক্সির ডিকিতে কুমড়ো সরাতেই উদ্ধার বৃদ্ধার দেহ, আটক চালক–সহ ৪

  • প্রথমে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে, পরে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয় ওই বৃদ্ধাকে। এদিন সকালে দেহ কোথাও ফেলে দিয়ে প্রমাণ লোপাট করার উদ্দেশেই ট্যাক্সি নিয়ে বেরিয়েছিল তারা।

ট্যাক্সির ডিকির ভেতর রাখা কুমড়ো–ভর্তি বস্তার মধ্যে বৃদ্ধার দেহ উদ্ধার। শুক্রবার ভোরে বাসন্তী হাইওয়ের ওপর চৌবাগা বাসস্ট্যান্ডের কাছে ঘটনাটি ঘটে। এক দম্পতি ও ট্যাক্সিচালক–সহ মোট ৪ জনকে আটক করেছে প্রগতি ময়দান থানার পুলিশ। দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানোর ব্যবস্থা করে তারা তদন্ত শুরু করেছে।

এদিন ভোরে বাসন্তী হাইওয়ের ওপর দিয়ে দ্রুত গতিতে যাওয়ার সময় ওই ট্যাক্সিটিকে থামায় সেখানে কর্তব্যরত পুলিশ। যাত্রীদের অসংলগ্ন কথাবার্তায় পুলিশের সন্দেহ বাড়ে। গাড়ির তল্লাশি শুরু হয়। কিন্তু ডিকির চাবি চাইলে তা দিতে প্রথমে রাজি হয়নি ওই ট্যাক্সিচালক। পরে ডিকি খুলতেই দেখা যায়, সেখানে রয়েছে এক বস্তা কুমড়ো। সেগুলি সরিয়ে খতিয়ে দেখতে গিয়ে ওই বৃদ্ধার দেহ বেরিয়ে আসে। সঙ্গে সঙ্গে ওই ট্যাক্সিকে আটকায় পুলিশ। আটক করা হল চালক, এক দম্পতি ও তাদের আত্মীয় অজয় রঙকে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ওই মহিলার নাম সুজামনি গায়েন (‌৬০)‌। আটক দম্পতি বাসু মণ্ডল ও মলিনা মণ্ডলকে জেরা করে পুলিশ জানতে পেরেছে, মৃত বৃদ্ধা সম্পর্কে তাদের বড় মেয়ে সুজাতার শাশুড়ি। অভিযোগ, নিয়মিত সুজাতার ওপর মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার চালাতেন তাঁর শাশুড়ি। বেশ কয়েকদিন ধরে পারিবারিক অশান্তি চলছিল। 

বৃহস্পতিবার রাতে তা চরম পর্যায়ে পৌঁছয়। ওই দম্পতির বাড়িতেই প্রথমে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে, পরে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয় ওই বৃদ্ধাকে। এদিন সকালে দেহ কোথাও ফেলে দিয়ে প্রমাণ লোপাট করার উদ্দেশেই ট্যাক্সি নিয়ে বেরিয়েছিল তারা। ঘটনার নেপথ্য আরও পরিষ্কার জানতে পুলিশি জেরা চলছে।

বন্ধ করুন