বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ইডি–সিবিআইকে তলব করতে চলেছে রাজ্য বিধানসভা, স্পিকারকে অপমানের জের
বিধানসভা। ছবি সৌজন্য–এএনআই।
বিধানসভা। ছবি সৌজন্য–এএনআই।

ইডি–সিবিআইকে তলব করতে চলেছে রাজ্য বিধানসভা, স্পিকারকে অপমানের জের

  • এই দুই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা বিধানসভা ও স্পিকার পদের অবমাননা করেছেন।

কেন্দ্রীয় দুই সংস্থার সঙ্গে দ্বৈরথ অব্যাহত থাকছে বিধানসভার স্পিকারের বলে খবর। বিধানসভার স্বাধিকার রক্ষা কমিটি আবার তলব করতে পারে সিবিআই ও ইডি–কে। বৃহস্পতিবার সেই তলবের পদক্ষেপ করতে শুরু করেছে স্বাধিকার রক্ষা কমিটি। রাজ্য বিধানসভার স্পিকারকে অসম্মান করা হয়েছে। এই অভিযোগে ইডি–সিবিআই দুই সংস্থাকে নোটিশ দেওয়া হবে কি না, তা নিয়ে সিদ্ধান্ত হতে চলেছে।

কিভাবে স্পিকারকে অপমান করা হয়েছিল?‌ বিধানসভা সূত্রে খবর, অক্টোবর মাসে সিবিআই এবং ইডি’‌র আধিকারিকদের ডেকে পাঠিয়েছিলেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। নারদ মামলা নিয়েই কথা বলতে ডাকা হযেছিল। কিন্তু স্পিকারের ডাকে সাড়া দেননি আধিকারিকরা। এই বিষয়ে ক্ষোভপ্রকাশ করেছিলেন স্পিকার স্বয়ং। সুতরাং এই দুই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা বিধানসভা ও স্পিকার পদের অবমাননা করেছেন। তাই ক্ষোভপ্রকাশ করেছিলেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। বিষয়টি নিয়ে এবার নাড়াচাড়া হতে পারে।

কেন্দ্রীয় দুই সংস্থার সঙ্গে দ্বৈরথ অব্যাহত থাকছে বিধানসভার স্পিকারের বলে খবর। বিধানসভার স্বাধিকার রক্ষা কমিটি আবার তলব করতে পারে সিবিআই ও ইডি–কে। বৃহস্পতিবার সেই তলবের পদক্ষেপ করতে শুরু করেছে স্বাধিকার রক্ষা কমিটি। রাজ্য বিধানসভার স্পিকারকে অসম্মান করা হয়েছে। এই অভিযোগে ইডি–সিবিআই দুই সংস্থাকে নোটিশ দেওয়া হবে কি না, তা নিয়ে সিদ্ধান্ত হতে চলেছে।

কিভাবে স্পিকারকে অপমান করা হয়েছিল?‌ বিধানসভা সূত্রে খবর, অক্টোবর মাসে সিবিআই এবং ইডি’‌র আধিকারিকদের ডেকে পাঠিয়েছিলেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। নারদ মামলা নিয়েই কথা বলতে ডাকা হযেছিল। কিন্তু স্পিকারের ডাকে সাড়া দেননি আধিকারিকরা। এই বিষয়ে ক্ষোভপ্রকাশ করেছিলেন স্পিকার স্বয়ং। সুতরাং এই দুই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা বিধানসভা ও স্পিকার পদের অবমাননা করেছেন। তাই ক্ষোভপ্রকাশ করেছিলেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। বিষয়টি নিয়ে এবার নাড়াচাড়া হতে পারে।|#+|

এই ঘটনার পর বিধানসভার উপ মুখ্যসচেতক তাপস রায় বিষয়টি নিয়ে প্রস্তাব আনেন। সিবিআই এবং ইডি পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা এবং স্পিকার পদের অমর্যাদা করেছে বলে উল্লেখ করেন। সেই প্রস্তাবটিকে স্বাধিকার রক্ষা কমিটির কাছে চলে যায়। এরপর বুধবার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। আর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, আগামী সপ্তাহে দুই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে বিধানসভার স্বাধিকার রক্ষা কমিটির কাছে হাজিরা দিতে বলা হতে পারে।

আবার রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্দে সাংবাদিক বৈঠকে স্পিকারের উদ্দেশ্যে আপত্তিকর শব্দ ব্যবহারের নালিশ জানিয়ে স্বাধিকার ভঙ্গের অভিযোগ এনেছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। বুধবার সেই সাংবাদিক বৈঠকের একাধিক ভিডিও ক্লিপিংস খতিয়ে দেখা হয়। কমিটির সূত্রে খবর, চন্দ্রিমার অভিযোগের পক্ষে প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। তাই আগামী ৮ ডিসেম্বর কমিটির পরবর্তী বৈঠকের দিন ঠিক করা হয়েছে। সেখানেই বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বন্ধ করুন