বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > কলকাতায় ১৪ শতাংশের বেশি মানুষের দেহে তৈরি হয়ে গিয়েছে করোনার অ্যান্টিবডি: ICMR
কলকাতার রাস্তায় করোনা পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহ করছেন এক স্বাস্থ্যকর্মী (REUTERS)
কলকাতার রাস্তায় করোনা পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহ করছেন এক স্বাস্থ্যকর্মী (REUTERS)

কলকাতায় ১৪ শতাংশের বেশি মানুষের দেহে তৈরি হয়ে গিয়েছে করোনার অ্যান্টিবডি: ICMR

  • জানা গিয়েছে কলকাতায় ১৪.৩৯ শতাংশ মানুষের দেহে করোনার অ্যান্টিবডি ইতিমধ্যেই তৈরি হয়ে গিয়েছে। কলকাতা লাগোয়া দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ২.৫ শতাংশ মানুষের শরীরে অ্যান্টিবডি মিলেছে।

কলকাতার ১৪ শতাংশ মানুষের শরীরে তৈরি হয়ে গিয়েছে করোনা প্রতিরোধ ক্ষমতা। আইসিএমআরের এক সমীক্ষায় এমনটাই দাবি করা হয়েছে। চলতি মাসের শুরুর দিকে কলকাতা-সহ পশ্চিমবঙ্গের কয়েকটি জেলা থেকে বাসিন্দাদের রক্তের নমুনা সংগ্রহ শুরু করে আইসিএমআর। সেই নমুনা পরীক্ষা করে একথা জানিয়েছে সংস্থাটি।

জানা গিয়েছে কলকাতায় ১৪.৩৯ শতাংশ মানুষের দেহে করোনার অ্যান্টিবডি ইতিমধ্যেই তৈরি হয়ে গিয়েছে। কলকাতা লাগোয়া দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ২.৫ শতাংশ মানুষের শরীরে অ্যান্টিবডি মিলেছে। আলিপুরদুয়ার ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় মাত্র ১ শতাংশ মানুষের দেহে অ্যান্টিবডি পাওয়া গিয়েছে। তবে কত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে তা জানায়নি সংস্থা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করনা অ্যান্টিবডি সনাক্তকরণের মাধ্যমে কত মানুষ অজান্তে আক্রান্ত হচ্ছেন তা যেমন বোঝা সম্ভব তেমনই করোনার বিরুদ্ধে ক্রমশ স্বাভাবিক প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে উঠবে সমাজে।

প্রাণীর শরীরে কোনও ভাইরাস বা জীবাণু প্রবেশ করলে তাকে খতম করতে দেহে একটি বিশেষ ধরণের প্রোটিন তৈরি হয়। বিভিন্ন ভাইরাস বা জীবাণুর ক্ষেত্রে সেই প্রোটিনের গঠন বিভিন্ন হয়ে থাকে। জীবাণুটি শরীর থেকে ধ্বংস হয়ে গেলেও রক্তে রয়ে যায় ওই প্রোটিনগুলি। পরে একই ভাইরাস বা জীবাণু সংক্রমণ ঘটানোর চেষ্টা করলে সঙ্গে সঙ্গে তাকে মেরে ফেলে এই প্রোটিনগুলি। এই প্রোটিনকেই বলা হয় অ্যান্টিবডি।

 

বন্ধ করুন