বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > রেড রোডের দুর্ঘটনার সাম্প্রতিক আপডেট: মৃত কলকাতা পুলিশের কনস্টেবল, আহত ১৯
দুর্ঘটনাগ্রস্ত বাস। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
দুর্ঘটনাগ্রস্ত বাস। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

রেড রোডের দুর্ঘটনার সাম্প্রতিক আপডেট: মৃত কলকাতা পুলিশের কনস্টেবল, আহত ১৯

  • মিনিবাসের তলায় পিষে মৃত্যু হয়েছে এক পুলিশকর্মীর।

দীর্ঘ দেড় মাস পর ফের শুরু হয়েছে বাস চলাচল। আর প্রথমদিনই ভয়াবহ দুর্ঘটনার মুখে পড়ল একটি মিনিবাস। রেড রোডে ফোর্ট উইলিয়ামের পাঁচিলে ধাক্কা মেরে সেটি। মিনিবাসের তলায় পিষে মৃত্যু হয়েছে এক পুলিশকর্মীর। আহত হয়েছেন ১৯ জন।

একনজরে দেখে নিন সেই ঘটনার সাম্প্রতিক আপডেট :

১) বৃহস্পতিবার মেটিয়াবুরুজ-হাওড়া রুটের মিনিবাসটি রেড রোডের উপরে উঠে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। প্রথমে এক বাইক আরোহীকে ধাক্কা মারে। তারপর রাস্তার ধারে রেলিং ভেঙে ফোর্ট উইলিয়ামের পাঁচিলে ধাক্কা মারে মিনিবাসটি। বাসের তলায় আটকে পড়েন ওই বাইক আরোহী। লন্ডভন্ড হয়ে যায় বাসের ভিতর। ইস্পাতের সিট দুমড়ে-মুচড়ে যায়। জানালার কাচও ভেঙে পড়ে।

ক্রেনে করে সরানো হচ্ছে বাস। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
ক্রেনে করে সরানো হচ্ছে বাস। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

২) খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে চলে আসে পুলিশ। তিনটি ক্রেন নিয়ে আসা হয়। ক্রেন দিয়ে বাসটি কিছুটা সরিয়ে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় বাইক আরোহীকে উদ্ধার করে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাঁর মৃত্যু হয়।

৩) পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ওই ব্যক্তি কলকাতা পুলিশের কনস্টেবল ছিলেন। বয়স ৪৫-এর মতো।

৪) আরও ১৯ জন আহত হয়েছে। সূত্রের খবর, ১৩ জনকে এসএসকেএম হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। কারও হাত ভেঙে গিয়েছে। কারও ক্ষত হয়েছে।

২) খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে চলে আসে পুলিশ। তিনটি ক্রেন নিয়ে আসা হয়। ক্রেন দিয়ে বাসটি কিছুটা সরিয়ে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় বাইক আরোহীকে উদ্ধার করে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাঁর মৃত্যু হয়।

৩) পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ওই ব্যক্তি কলকাতা পুলিশের কনস্টেবল ছিলেন। বয়স ৪৫-এর মতো।

৪) আরও ১৯ জন আহত হয়েছে। সূত্রের খবর, ১৩ জনকে এসএসকেএম হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। কারও হাত ভেঙে গিয়েছে। কারও ক্ষত হয়েছে।|#+|

৫) রেড রোডের প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বিধিনিষেধ শিথিলের প্রথমদিনই বেপরোয়াভাবে ছুটছিল বাসটি। রেড রোডে উঠেই বাসের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন চালক। ধাক্কা মারেন ওই বাইক আরোহীকে। একাংশের দাবি, মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। সেইসঙ্গে দ্রুতগতিতে চালাচ্ছিলেন। তার জেরেই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। দুর্ঘটনার পর কিছুক্ষণ মাথা নীচু করে পড়েছিলেন তিনি। পরে এলাকা থেকে পালিয়ে যান বলে দাবি স্থানীয়দের একাংশের।

বন্ধ করুন