বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Hindu Mahasabha Durga Puja: হিন্দু মহাসভার অসুর বিতর্কে উঠে আসছে চন্দ্রচূড়ের নাম, কে তিনি? রইল তথ্য

Hindu Mahasabha Durga Puja: হিন্দু মহাসভার অসুর বিতর্কে উঠে আসছে চন্দ্রচূড়ের নাম, কে তিনি? রইল তথ্য

চন্দ্রচূড় গোস্বামী।

অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার রাজ্য সভাপতি হিসেবে পরিচিত চন্দ্রচূড় গোস্বামী রাজনীতিতে এই প্রথম নন। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে যুক্ত। পরিবেশ বিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর চন্দ্রচূড় বর্তমানে পিএইচডি করছেন। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে লেকচারার হিসেবেও কাজ করেছেন।

দক্ষিণ কলকাতার রুবি পার্কের অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার দুর্গাপুজোকে কেন্দ্র করে বিতর্ক এখন তুঙ্গে। রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে বিভিন্ন মহল থেকে উঠে আসছে সমালোচনার ঝড়। এই দুর্গাপুজোয় মহাত্মা গান্ধীর আদলে রূপ দেওয়া হয়েছে মহিষাসুরকে। আর তাতে ক্রমে বিতর্ক বেড়ে চলেছে। এই বিতর্কের মূলে উঠে আসছে একজনেরই নাম। তিনি হলেন পুজোর মূল উদ্যোক্তা চন্দ্রচূড় গোস্বামী। কে এই চন্দ্রচুর গোস্বামী? তার সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

হিন্দু মহাসভার পুজো নিয়ে নিন্দা সুকান্তর, ‘BJP শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে চাইছে’ কুণাল

অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার রাজ্য সভাপতি হিসেবে পরিচিত চন্দ্রচূড় গোস্বামী রাজনীতিতে এই প্রথম নন। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে যুক্ত। পরিবেশ বিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর চন্দ্রচূড় বর্তমানে পিএইচডি করছেন। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে লেকচারার হিসেবেও কাজ করেছেন। এছাড়াও গানে তার স্নাতকোত্তর ডিগ্রী রয়েছে। গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে তিনি দীর্ঘদিন ধরেই যুক্ত রয়েছেন। এছাড়া, সংগঠনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন দায়িত্বও তিনি সামলেছেন। বর্তমানে তিনি গেরুয়া শিবিরের স্বস্তিকা ডিজিটাল টিভির প্রধান সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন। এইসবের পাশাপাশি তিনি খেলাধুলার সঙ্গেও যুক্ত। বেঙ্গল ব্যাডমিন্টন অ্যাসোসিয়েশনের একজন নথিভুক্ত খেলোয়াড় এই চন্দ্রচূড়।

তিনি প্রথম ভোটের ময়দানে পা রাখেন ২০২১ সালে। ওই সময় ভবানীপুর উপনির্বাচনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে নির্দল প্রার্থী হিসেবে তিনি দাঁড়িয়েছিলেন। যদিও তিনি খুব ভালো ফল করতে পারেননি। মাত্র ৮১টি ভোট পেয়েছিলেন। তিনি আর এবার গান্ধীজীর আদলে অসুরের মূর্তি তৈরি করে বিতর্কে জড়িয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, ‘কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে আমাকে ফোন করে মূর্তি বদলে দিতে বলা হয়েছিল।’ তবে তার সাফ কথা, ‘আমি সত্যি কথা বলতে ভয় পাই না গ্রেফতার হলে হব।’ ইতিমধ্যে এই ঘটনায় কসবা থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে তার বিরুদ্ধে। পাশাপাশি বিষয়টি প্রকাশে আসার পরে পুলিশের তরফে এই পুজোর অসুরের মূর্তিতে চুল এবং গোঁফ লাগিয়ে দেওয়া হয়।

বন্ধ করুন