বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > নেই মমতার 'সমর্থন', কৃষকদের ডাকা ভারত বনধ মোকাবিলায় কড়া পদক্ষেপ লালবাজারের
বনধ মোকাবিলায় প্রস্তুত কলকাতা পুলিশ (ফাইল ছবি, সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)
বনধ মোকাবিলায় প্রস্তুত কলকাতা পুলিশ (ফাইল ছবি, সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)

নেই মমতার 'সমর্থন', কৃষকদের ডাকা ভারত বনধ মোকাবিলায় কড়া পদক্ষেপ লালবাজারের

  • বনধের সমর্থনে রাস্তায় নামবে বামেরা, মোরকাবিলায় প্রস্তুত কলকাতা পুলিশ।

আজ কৃষকদের ডাকা ভারত বনধ। এদিন সকাল ৬টা থেকে বিকেল ৪টে অবধি বনধ। এই পরিস্থিতিতে বনধ মোকাবিলায় তত্পর কলকাতা পুলিশ। কলকাতা জুড়ে ৬০টি পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে বনধ সমর্থনকারীদের ঠেকাতে। পাশাপাশি বনধ সমর্থনকারীদের আগেভাগে হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছে পুলিশ। এই আবহে প্রত্যেক থানাকে এলাকায় ঘনঘন টহলদারি করতে বলা হয়েছে লালবাজারের তরফে। জোর করে বনধ সফল করতে গেলে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে।

কেন্দ্রের নয়া তিনটি কৃষি বিল প্রত্যাহারের দাবিতে আজ দেশজুড়ে ভারত বনধের ডাক দিয়েছে কৃষক সংগঠনগুলি। কংগ্রেস ও বামদলগুলি সমর্থন করেছে এই বনধকে। সোমবার সংযুক্ত কিষাণ মোর্চার ডাকা ভরত বনধের সমর্থনে পথে নামতে চলেছেন বাম নেতা-কর্মীরা। যদিও এই বনধে সমর্থন নেই বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর সাফ কথা, ইস্যুকে সমর্থন করলেও, বনধকে কোনও ভাবেই সমর্থন করবেন না তিনি।

মমতা গতকাল প্রচার সভা থেকে জানান, কৃষকদের পাশে দাঁড়ালেও বাংলায় বনধ বিরোধী যে অবস্থান তাঁর সরকার নিয়েছে, তাতে অনড় থাকবেন তিনি। রবিবার ভবানীপুরে ভোট প্রচারে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, '২০১১ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে বনধ সমর্থন করি না। তবে ইস্যুকে সমর্থন করছি।' তৃণমূল নেত্রী আরও বলেন, 'সারা ভারতে কৃষক আন্দোলন হচ্ছে। আমরা তাদের সমর্থন করছি। তিনটি বিল প্রত্যাহার করতে বলছি। ২০১১ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে বনধ সমর্থন করি না। কোনও বনধ করি না। পার্টির কেউ মারা গেলেও না। কিন্তু ইস্যুটাকে সমর্থন করি।'

উল্লেখ্য, তিনটি কৃষি বিল প্রত্যাহারের দাবিতে গত বছর থেকে আন্দোলন চালাচ্ছেন কৃষকরা। সংযুক্ত কিষান মোর্চার তরফে সোমবার ভারত বনধের ডাক দেওয়া হয়। তবে এরাজ্যে বনধ বিরোধী অবস্থান আগেই নিয়েছে তৃণমূল সরকার। এক্ষেত্রেও সেই অবস্থানই ধরে রাখছে শাসকদল।

 

বন্ধ করুন