বাড়ি > বায়োস্কোপ > 'আমি কোয়ারেন্টাইনে আছি, বাইরে ঘুরে বেড়ানোর খবর মিথ্যা': অভিষেক চট্টোপাধ্যায়
'সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত খবর ভুয়ো, বাড়িতেই আছি' দাবি অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের (ছবি-ফেসবুক)
'সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত খবর ভুয়ো, বাড়িতেই আছি' দাবি অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের (ছবি-ফেসবুক)

'আমি কোয়ারেন্টাইনে আছি, বাইরে ঘুরে বেড়ানোর খবর মিথ্যা': অভিষেক চট্টোপাধ্যায়

  • বুধবার লন্ডন থেকে কলকাতায় ফেরেন অভিষেক।শুক্রবার এক সংবাদমাধ্যম প্রকাশিত খবর অনুযায়ী অভিনেতা নিজেই জানিয়েছিলেন শনিবার এক মঠের অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন তিনি। কয়েক ঘন্টা পরেই ফেসবুকে সেই খবরকে মিথ্যা বলে উড়িয়ে দিলেন অভিষেক চট্টোপাধ্যায়।

বাজির শ্যুটিংয়ে জিত-মিমিদের সঙ্গে লন্ডনে গিয়েছিলেন অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়। তবে সরকারি নির্দেশ মেনে মাঝপথেই শ্যুটিং বাতিল করে ১৮ তারিখ সকালে কলকাতায় পৌঁছায় গোটা টিম। তারপর থেকেই হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা গোটা ইউনিটের। কিন্তু প্রশাসনের নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে শনিবার এক মঠের অনু্ষ্ঠানে যোগ দেওয়ার কথা ছিল অভিনেতা। অন্তত এক নামী সংবাদপত্রকে তেমনটাই জানিয়েছিলেন অভিষেক। এরপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় নিন্দার ঝড় উঠে। কীভাবে করোনা জর্জরিত দেশ থেকে এসে বাইরে বার হওয়ার কথা ভাবছেন অভিনেতা? প্রশ্ন তোলেন নেটিজেনরা। পশ্চিমবঙ্গে করোনাআক্রান্ত তিনজনই ব্রিটিশ যুক্তরাজ্য থেকে এদেশে এসেছেন। তাই অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের আরও বাড়তি সতর্ক থাকা উচিত, বলেই মত নেটিজেনদের। ২৪ ঘন্টা পার হতে না হতেই ১৮০ ডিগ্রী ঘুরে গেলেন অভিনেতা। শনিবার ফেসবুকে দেওয়ালে একটি ভিডিয়ো পোস্ট করে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরকে মিথ্যা বলে উড়িয়ে দেন অভিনেতা। অভিষেক চট্টোপাধ্যায় জানান, তিনি আগামী ৩১ মার্চ অবধি বাড়ির বাইরে পা পর্যন্ত রাখছেন না।


তিনি বলেন, 'আমি গত ১৮ মার্চ লন্ডন থেকে দুবাই হয়ে কলকাতায় ফিরেছি, সেখানে(কলকাতা বিমানবন্দরে) আমার মেডিক্যাল টেস্ট পুরো হয়, আমি সংক্রমিত নই তার সার্টিফিকেট আমাকে দেওয়া হয়। তাই জন্য আমি ইমিগ্রেশন পাই ভারতে ঢোকবার। তারপর থেকে আমি আমার স্ত্রী ও মেয়ের সঙ্গে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছি। ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাড়ির বাইরে আমি পা পর্যন্ত রাখব না। তারপর অবস্থা বুঝে সিদ্ধান্ত নেব, সরকার যা নির্দেশ দেবে সেই অনুযায়ী কাজ করব। আমি সম্পূর্ণ হোম কেয়ারেন্টাইনে আছি। এখনও পর্যন্ত আমি সম্পূর্ন সুস্থ রয়েছি।.. কিছু কিছু লেখা হচ্ছে আমি নাকি বাইরে বেরিয়ে বেড়াচ্ছি তা সম্পূর্ন অসত্য, মিথ্যা খবর। আমি আইসোলেশনে আছি'।


বাজির শ্যুটিংয়ে ১৫ তারিখ লন্ডনে গিয়েছিলেন অভিষেক। ১৬ তারিখ থেকে তাঁর শ্যুটিংয়ের শেডিউল নির্দিষ্ট ছিল কিন্তু সেইদিনের শেডিউল পিছিয়ে যায়। এবং সেই রাতেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় তড়ঘড়ি দেশ ফেরবার। ১৭ মার্চ হিথ্রো বিমানবন্দর থেকে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা দেন জিত-মিমি-অভিষেকরা। তাই কোনওরকম শ্যুটিং না করেই দেশে ফিরেছেন অভিষেক। ১৮ তারিখ বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অভিষেক জানিয়েছিলেন, 'লন্ডনে কাউকে মাস্ক পরে ঘুরতে দেখিনি, এর কোনও প্রতিক্রিয়াই নেই। দুবাইতেও কোনও প্রতিক্রিয়া নেই, শুধু কলকাতাতেই এত কড়াকড়ি'।



বন্ধ করুন