বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Saayoni Ghosh: শাঁখা-সিঁদুরে সেজে ছবি পোস্ট সায়নীর, নেটিজেন ভুল ধরতেই অবাক করা জবাব নায়িকার
সায়নী ঘোষ (ছবি-ফেসবুক)
সায়নী ঘোষ (ছবি-ফেসবুক)

Saayoni Ghosh: শাঁখা-সিঁদুরে সেজে ছবি পোস্ট সায়নীর, নেটিজেন ভুল ধরতেই অবাক করা জবাব নায়িকার

  • ‘তুমি আমাকে বাঁচালে!' সায়নীর সাজে মস্ত ভুল ধরল নেটিজেন, ধন্যবাদ জানালেন অভিনেত্রী। 

রাজনীতির ময়দানে পা রাখার পর থেকেই যেন সোশ্যাল মিডিয়ায় একটু বেশিই অ্যাক্টিভ সায়নী ঘোষ। এই টলিউড অভিনেত্রীর জনপ্রিয়তাও বেড়েছে বিদ্যুত্ গতিতে। রাজনীতির ময়দানে কার্যত গায়েব বিজেপির হেরো প্রার্থীরা, সে জায়গায় একদম উলটো পথে হাঁটছেন এই তৃণমূল নেত্রী। দীর্ঘদিন পর শ্যুটিং ফ্লোরে ফিরেছেন সায়নী। রাজনৈতিক কর্মব্যস্ততা সামলে একটু পুরোনো ভালোবাসার কাছে ফেরা।

শুক্রবার রাতে ফেসবুকে শ্যুটিং ফ্লোর থেকেই একটা ছবি পোস্ট করেন সায়নী। সেখানে, লাল পাড় সাদা শাড়ি, এক ঢাল খোলা চুলে সুন্দরী সায়নী ঘোষ। মাথা ভর্তি সিঁদুর, কপালে বড় লাল টিপ, হাতে শাঁখা-পলা, নাকে নথ- একদম বাঙালি সাজে ধরা দিয়েছেন অভিনেত্রী। ছবির ক্যাপশনে সায়নী লেখেন- ‘চাপের মধ্যেও সাহস ধরে রাখাই হল লাবন্য’। এই পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল, কিন্তু সায়নীর ছবিতে এক বিরাট ভুল ধরলেন এক নেটিজেন। এক জনৈক সায়নীর এই ছবির মন্তব্য বাক্সে লেখেন- ‘খুব সুন্দর লাগছে তবে শাঁখা পলাগুলো একটু সোজা করে পরলে আরও ভালো লাগত। আগে শাঁখা পরে পলা পরতে হয়’। হ্যাঁ, শাঁখা-পলা পরবার নিয়মে একটু গণ্ডগোল করে ফেলেছিলেন এই অবিবাহিতা নায়িকা। 

এই কমেন্টের পালটা জবাবে সেই নেটিজেনকে ধন্যবাদ জানান সায়নী, বলেন- ‘আপনি আমাকে কনটিনিউটি মিসটেকের মতো বিরাট ভুলের হাত থেকে বাঁচালেন, অশেষ ধন্যবাদ’। উল্লেখ্য, একই সাজে দিন কয়েক আগে একটি ভিডিয়ো পোস্ট করেছিলেন সায়নী। তখন অবশ্য নায়িকার হাতে আগে শাঁখা এবং পরে পলা পরা ছিল। 

ধন্যবাদ সায়নীর
ধন্যবাদ সায়নীর

উল্লেখ্য, অনীক দত্তের পরবর্তী ছবি 'অপরাজিত’-র শ্যুটিং নিয়ে ব্যস্ত অভিনেত্রী। ছবিতে তাঁর চরিত্রে নাম বিমলা রায়। ছবিতে সত্যজিৎ রায়ের স্ত্রী বিজয়া রায়ের জীবনের ছায়া রয়েছে, কিন্তু পরিচালক এটিকে বিজয়া রায়ের বায়োপিক বলতে না-রাজ। সায়নীর (Saayoni Ghosh) বিপরীতে এই ছবিতে অভিনয় করছেন আবির চট্টোপাধ্যায়। 

অন্যদিকে সায়নী সাফ জানিয়ে দিয়েছেন অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতিকেও সমান তালে বজার রাখবেন। সায়নীর কথায়, ‘এমনও সময় গিয়েছে, যখন বছরে চোদ্দো-পনেরোটা ছবি করেছি। এখন রাজনীতি মন দিয়ে করতে চাই। কিন্তু ভালো চরিত্রের প্রতি আকর্ষণ তো থাকেই’।

বন্ধ করুন