বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > বিয়ের পর সবে ৭ মাস! ‘দুজনেই প্রচণ্ড একঘেয়েমির মধ্যে দিন কাটাচ্ছি’,বললেন অনির্বাণ
অনির্বাণ-মধুরিমা (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
অনির্বাণ-মধুরিমা (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

বিয়ের পর সবে ৭ মাস! ‘দুজনেই প্রচণ্ড একঘেয়েমির মধ্যে দিন কাটাচ্ছি’,বললেন অনির্বাণ

  • গত নভেম্বরে মধুরিমা গোস্বামীর সঙ্গে আইনি বিয়ে সারেন অনির্বাণ। 

ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে খুব বেশি কথা বলতে এক্কেবারে ভালোবাসেন না অনির্বাণ ভট্টাচার্য। দীর্ঘদিন ধরে প্রেম সম্পর্কে আবদ্ধ থাকলেও কোনওদিন প্রেমিকাকে নিয়ে ‘টু’ শব্দ করেননি টলিউডের এই হার্টথ্রব নায়ক। অবশেষে গত বছর নভেম্বরে আইনি বিয়ে সারেন অনির্বাণ-মধুরিমা। প্রত্যাশিতভাবেই তাঁদের বিয়ের অনুষ্ঠানও ছিল বেশ সাদামাটা, দেখনদারি এক্কেবারে না-পসন্দ ‘ব্যোমকেশ’-এর। অনিবার্ণ-মধুরিমার সুখী দাম্পত্য জীবনের ঝলকও খুব একটা দেখে উঠবার সুযোগ হয়নি অনির্বাণ অনুরাগীদের, কারণ দুজনেই সোশ্যাল মিডিয়ায় খুব বেশি অ্যাক্টিভ নন। এবং ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে সেখানে কোনওরকম উচ্চবাচ্য করেন না তাঁরা। 

সম্প্রতি এক ইংরাজি দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাত্কারে নিজের দাম্পত্য জীবন নিয়ে মুখ খুলেছেন অনির্বাণ। এমনিতে সোজাসাপটা কথা বলতেই ভালোবাসেন অভিনেতা। নিজের দাম্পত্য জীবন নিয়ে অভিনেতার সাফ কথা, স্ত্রীর সঙ্গে এক ছাদের তলায় থেকে একঘেয়ে লাগছে! ভাবছেন ব্যাপারটা কী!

বিয়ের পর কতটা পালটে গিয়েছে অনির্বাণের জীবন? এই নিয়ে প্রশ্ন রাখা হলে অভিনেতা জানান, ‘আগে আমরা একা থাকতাম, এখন একসঙ্গে থাকি। বাকি বিয়ের পর একটা বাঙালি পুরুষের জীবনে যা পরিবর্তন আসে আমারও তেমনটা এসেছে এবং সেই পরিবর্তনটা আমি বেশ ভালোই উপভোগ করছি। কিন্তু আমরা দুজনেই প্রচণ্ড একঘেয়েমির মধ্যে দিন কাটাচ্ছি, দুদনেই চাই বাইরে গিয়ে কাজ করতে। কিন্তু সব মিলেয়ে বিয়ের পর এই পরিবর্তনটা বেশ মধুর। আমি এবং আমার সঙ্গী (মধুরিমা) দুজনেই একে অপরের সঙ্গ দারুণ উপভোগ করি, তাই দিন ভালোই কাটছে’।

করোনার জেরে ঘরবন্দী জীবনের জেরেই আজকাল বিশেষ দিনের মাহাত্ম্য হারিয়েছে রবিবার। এখন সপ্তাহের অন্য কোনও দিনের সঙ্গে এই ছুটির দিনের বিশেষ পার্থক্য নেই বলেই মনে করছেন অনির্বাণ। এই ঘরবন্দি জীবন তাঁকে বেশ কিছু অলসও করে দিয়েছে বলে জানান অভিনেতা। সেই কারণেই নাকি দাড়ি কামাচ্ছিলেন না তিনি, এরপর বন্ধুদের পরামর্শে ফ্রেঞ্চ কাট নিয়ে ফটোশ্যুট সেরে ফেলেন-  এখন অনির্বাণের এই স্টাইল স্টেটমেন্টে ফিদা মহিলা ভক্তরা।

ঘুরতে ভালোবাসেন মধুরিমা, তবে নিজেকে একদমই ট্রাভেল এনথুজিয়াস্ট বলে মানতে রাজি নন অনির্বাণ। সম্প্রতি শ্যুটিংয়ে উত্তরবঙ্গে পৌঁছেছিলেন অভিনেতা, এবং শ্যুটিং শেষ করে মধুরিমাকে নিয়ে কালিম্পং-এ ঘুরতে গিয়েছিলেন, সেটাই নাকি তাঁদের হানিমুন বলে জানালেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য।এর বাইরে বিয়ের পর মেদিনীপুর ছাড়া অন্য কোথাউ একসঙ্গে যাওয়া হয়নি বলে জানান অভিনেতা। মেদিনীপুর দুজনেরই জন্মভূমি.. তবে আপতত সব ছেড়ে পুরোদমে কাজ শুরু করতে চান ‘কাজ পাগল’ অনির্বাণ।

মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে অনির্বাণের ‘মুখোশ’। বিরসা দাশগুপ্তের এই ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা ১৩ই অগস্ট। 

বন্ধ করুন