বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > দলিত বিরোধী মন্তব্যের জের, মুনমুন দত্তকে গ্রেফতারির দাবিতে সরব নেটিজেনরা
মুনমুন দত্ত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
মুনমুন দত্ত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

দলিত বিরোধী মন্তব্যের জের, মুনমুন দত্তকে গ্রেফতারির দাবিতে সরব নেটিজেনরা

  • নেটিজেনদের রোষের মুখে পড়ে ক্ষমা চাইলেন অভিনেত্রী, তবুও থামছে না বিতর্ক। 

সোমবার সকাল থেকেই টুইটার ইন্ডিয়ায় ট্রেন্ডিংয়ে #ArrestMunmunDutta, তারকা মেহতা কা উলটা চশমা-র ববিতাজিকে গ্রেফতারির দাবিতে অনড় নেটিজেনরা, সৌজন্যে অভিনেত্রীর সাম্প্রতিক সোশ্যাল মিডিয়া ভিডিয়ো। ইনস্টগ্রাম ভিডিয়োতে মেক-আপ টিউটোরিয়াল দিতে গিয়ে দলিত সম্প্রদায় বিরোধী মন্তব্য করে বসেন মুনমুন! অভিনেত্রী বলেন, 'আমি এবার ইউটিউবে আসতে চলেছি তাই আমি নিজেকে ভালো দেখাতে চাই, আমি এক্কেবারেই নিজেকে ভঙ্গি-র (Bhangi) মতো দেখতে লাগুক তা চাই না'। আর এই শব্দ ঘিরেই যাবতীয় বিতর্ক। দলিত সম্প্রদায়ের মানুষদের জন্য এই শব্দটি শুধু অবমাননাকর তা নয়, সুপ্রিম কোর্টের বিধান অনুযায়ী এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ।  

এসসি, এসটি সম্প্রদায়ের ভাবাবেগে আঘাত দেওয়ার জেরে অভিনেত্রীকে অবিলম্বে গ্রেফতারির দাবি জানাচ্ছেন টুইটারের বাসিন্দারা। মুনমুনের বিতর্কিত ভিডিয়ো কয়েকঘন্টার মধ্যেই আগুনের মতো ছড়িয়ে পড়ে, অবস্থা বেগতিক দেখে তড়িঘড়ি আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়ে ক্ষমা চান মুনমুন, বলেন ভাষার প্রতিবন্ধকতার জেরেই নাকি এমনটা ঘটেছে।

লেখেন- ‘গতকাল আমার পোস্ট করা একটি ভিডিয়োতে একটি শব্দকে ভুলভাবে ব্যাখা করা হচ্ছে। আমি কোনওদিনই কাউকে অপমান করা, বা নীচু করে দেখানো কিংবা কারুর ভাবাবেগে আঘাত দেওয়ার ইচ্ছা নিয়ে ওই কথা বলিনি।আমার ভাষাগত প্রতিবন্ধকতার জেরে ওই শব্দটির প্রকৃত অর্থ সম্পর্কে আমি অবগত ছিলাম না। আমি যখনই সেটির অর্থ জানতে পারি, ওই অংশটি আমি ভিডিয়ো থেকে সরিয়ে দিই। প্রত্যেক জাতি,বর্ণ, লিঙ্গের মানুষের প্রতি আমার সমান শ্রদ্ধা রয়েছে, তাঁরা সকলে মিলে আমাদের সমাজ ও দেশকে গড়ে তুলছে’।

যদিও মুনমুন দত্ত-র এই ক্ষমা প্রার্থনাও নেটিজেনদের ক্ষোভের আগুনে জল ঢালছে না। মুম্বই পুলিশকে মুনমুনের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জি জানাচ্ছে তাঁরা। 

বন্ধ করুন