বাড়ি > বায়োস্কোপ > করোনা হানা টেলিপাড়ায়,সপরিবারে আক্রান্ত কোড়া পাখি পরিবারের সদস্য সুরজিৎ
করোনার থাবা টলিগঞ্জে
করোনার থাবা টলিগঞ্জে

করোনা হানা টেলিপাড়ায়,সপরিবারে আক্রান্ত কোড়া পাখি পরিবারের সদস্য সুরজিৎ

  • করোনা ভাইরাসের থাবা এবার বাংলা টেলিভিশন দুনিয়ায়। কোভিড-১৯ আক্রান্ত অভিনেতা সুরজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর পরিবার।

রাজ্যে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়ে গিয়েছে। সোমবারই রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এ কথা জানিয়েছেন,আর এইদিনই ফের একবার করোনা থাবা বসাল টলিগঞ্জে। কোয়েল মল্লিকের পরিবারের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর আগেই সামনে এসেছে। এবার জানা গেল বাংলা টেলিভিশনের পরিচিত মুখ সুরজিত্ বন্দ্যোপাধ্যায় কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত। একাধিক বাংলা ধারাবাহিকে দেখা গিয়েছে এই অভিনেতাকে, তবে আপতত কোড়া পাখি ধারাবাহিকে গুরুত্বপূর্ন চরিত্রে অভিনয় করছিলেন তিনি। শুধু সুরজিত্ নন, তাঁর পরিবার অর্থাত্ স্ত্রী তথা অভিনেত্রী অনিন্দিতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও মেয়ে দেবপ্রিয়ার করোনা রিপোর্টও পজিটিভ বলেই ফেসবুক পোস্টে জানিয়েছেন অভিনেতার মেয়ে দেবপ্রিয়া। 

সোমবার তিনি লেখেন, 'আমার এবং আমার বাবা-মা তিন জনেরই কোভিড টেস্ট আজ পজিটিভ এসেছে। তিন মাস গৃহবন্দি থাকার পর এ জিনিস কী করে সম্ভব তা আমার জানা নেই। বাড়িতে টাকা পয়সার নেহাত বড্ড বেশি টানা টানি পড়ায় বাবাকে শ্যুটিং করতে হয় ।কিন্তু যতটুকু তথ্য আমাদের দেওয়া হয়েছিল, তাতে আমরা জানতাম টলিপাড়া সম্পূর্ণরূপে স্যানিটাইজ আছে। ছিলও হয়তো তাই ।হয়তো অন্য কোনোভাবে এসেছে। বলছে গোষ্ঠী সংক্রমণ নাকি সবে শুরু হয়েছে। বোধ হয় আমরাই ছিলাম গোষ্ঠী সংক্রমণের প্রথম তিন বলি। জানা নেই।পনেরো দিনের এ ফাঁড়া কাটবে কিনা জানা নেই'।

ইতিমধ্যেই স্বাস্থ্য দফতরে খবর দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন অভিনেতার মেয়ে দেবপ্রিয়া। লকডাউন পরবর্তী সময়ে শ্যুটিং শুরু হলে নিয়ম মেনে কোড়া পাখির শ্যুটিং সেরেছেন  সুরজিত্, বাড়িতে টাকার প্রয়োজন থাকাতেই কাজে ফিরতে হয়েছে অভিনেতাকে বলে জানিয়েছেন তাঁর মেয়ে। তাই বেশ কিছুটা চিন্তায় কোড়া পাখি পরিবারের সদস্যরা। তবে কি বন্ধ হবে এই ধারাবাহিকের শ্যুটিং?  প্রযোজনা সংস্থা ম্যাজিক মোমেন্টস সূত্রে খবর, সুরজিত্ বন্দ্যোপাধ্যায় এই ধারাবাহিকের শ্যুটিং করেছেন ১০ দিন আগে। তাই গাইডলাইন অনুযায়ী শ্যুটিং বন্ধ রাখবার কোনও প্রয়োজন নেই। কারণ নিময় বলছে শ্যুটিং চলাকালীন কোনও অভিনেতা কোভিড ১৯ এ আক্রান্ত হলে তিনদিন শ্যুটিং বন্ধ রেখে ফ্লোর স্যানিটাইজ করা হবে। কিন্তু এইখানে তেমন পরিস্থিতি নয়। তাই শ্যুটিং জারি থাকবে। 

বন্ধ করুন