বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'বেশ কয়েক দিন নেটমাধ্যম থেকে দূরে থাকব', সিদ্ধান্ত রূপঙ্করের
নিজেকে গুছিয়ে নিচ্ছেন রূপঙ্কর।

'বেশ কয়েক দিন নেটমাধ্যম থেকে দূরে থাকব', সিদ্ধান্ত রূপঙ্করের

  • তাঁকে নিয়ে চারদিক যখন তোলপাড়, তখন কার্যত মৌনী অবস্থান নিয়েছিলেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত গায়ক। সাংবাদিক সম্মেলনে একটি ছাপা বিবৃতি পড়ে ক্ষমা চেয়েছিলেন ঠিকই। কিন্তু ওইটুকুই।

'হু ইজ কেকে?'

একটি প্রশ্ন। নিমেষেই বদলে দিল পরিচিত ছবি। প্রিয় গায়ক হলেন খলনায়ক। কৃষ্ণকুমার কুন্নাথের মৃত্যুর জন্য দায়ী করে কাঠগড়ায় তোলা হল রূপঙ্কর বাগচিকে। মাঝে কেটেছে প্রায় দু'সপ্তাহ। কিন্তু বিতর্কের রেশ আর কমছে কোথায়! ধেয়ে আসছে ট্রোল-কটাক্ষ, কুমন্তব্য। উঠছে 'বয়কট রূপঙ্কর'-এর ডাক। কিন্তু যাঁকে ঘিরে এত কাণ্ড, সেই মানুষটি কেমন আছেন? খোঁজ নিল হিন্দুস্তান টাইমস বাংলা।

তাঁকে নিয়ে চারদিক যখন তোলপাড়, তখন কার্যত মৌনী অবস্থান নিয়েছিলেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত গায়ক। সাংবাদিক সম্মেলনে একটি ছাপা বিবৃতি পড়ে ক্ষমা চেয়েছিলেন ঠিকই। কিন্তু ওইটুকুই। সাংবাদিক সম্মেলন হলেও কোনও প্রশ্ন নেননি রূপঙ্কর। বিবৃতি পাঠ শেষ করে উঠে পড়েন চেয়ার থেকে। রওনা হন বাড়ির উদ্দেশে। অসংখ্য প্রশ্ন ধেয়ে এসেছিল বটে। কিন্তু করজোড়ে তিনি জানিয়ে দেন, আর কোনও প্রশ্নের জবাব দেবেন না। অন্য কোনও দিনের জন্য তুলে রেখেছিলেন বাকিটা।

এ বার মুখ খুললেন গায়ক। বললেন, 'আমি ভালো আছি। মানসিক চাপ কিছুটা কেটেছে। এখনও যে পুরোপুরি কেটে গিয়েছে, তা নয়। আমি ভালো থাকার চেষ্টা করছি। ভালো থাকবও।'

নেটমাধ্যমে এখনও তিনি বিচারাধীন। সে কথা গায়কের অজানা নয়। এখনও তিনি সাবধানী। খানিক হিসেবীও। তাঁর কথায়, 'নেটমাধ্যম থেকে দূরে আছি। এখন বেশ কয়েক দিন আমরা সেখান থেকে দূরেই থাকব।'

আর পিছনে ফিরে তাকাতে চান না রূপঙ্কর। ধীরে ধীরে গুছিয়ে নিচ্ছেন নিজেকে। সব নেতিবাচকতাকে দূরে সরিয়ে মন দিচ্ছেন কাজে।

বন্ধ করুন