বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > সুশান্ত মামলা : মাদককাণ্ডে NCB-র ম্যারাথন জেরার মুখে প্রয়াত অভিনেতার বডিগার্ড
সুশান্ত সিং রাজপুত (ফাইল ছবি, সৌজন্য এপি)
সুশান্ত সিং রাজপুত (ফাইল ছবি, সৌজন্য এপি)

সুশান্ত মামলা : মাদককাণ্ডে NCB-র ম্যারাথন জেরার মুখে প্রয়াত অভিনেতার বডিগার্ড

  • বুধবারের পর বৃহস্পতিবারও এনসিবির জিজ্ঞাসাবাদের মুখে সুশান্ত সিং রাজুপতের বডিগার্ড। 

সিদ্ধার্থ পিঠানির গ্রেফতারির পর ফের নতুন করে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর সঙ্গে যুক্ত মাদকমামলা। এই কাণ্ডে আজ (বৃহস্পতিবার) একটানা দ্বিতীয় দিন প্রয়াত অভিনেতার দেহরক্ষীকে জেরার করবে এনসিবি। জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা এএনআই। বুধবার সুশান্ত সিং রাজপুতের বডিগার্ডকে দীর্ঘসময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করে কেন্দ্রীয় মাদক নিয়ন্ত্রক সংস্থার আধিকারিকরা। এর আগে গত রবিবার ১৬ ঘন্টা ধরে এনসিবির জেরার মুখে পড়তে হয়েছে প্রয়াত অভিনেতার পরিচারক ও রাঁধুনি নীরজ ও কেশবকে। এছাড়াও এই মামলার সূত্র ধরেই হরিশ খান নামের এক মাদক পাচারকারীকে গ্রেফতার করেছে এনসিবি, জানিয়েছে এএনআই।

গত ২৬ তারিখ সুশান্তের ক্রিয়েটিভ ম্যানেজার তথা ফ্ল্যাট মেইট সিদ্ধার্থ পিঠানিকে হায়দরাবাদ থেকে গ্রেফতার করে এনসিবি, পরে তাঁকে মুম্বই নিয়ে আসা হয়। ২-রা জুন পর্যন্ত এনসিবি কাস্টডি মঞ্জুর হয়েছিল পিঠানির, ফের আদালতে তোলা হবে অভিযুক্তকে।

গত ১৪ জুন সুশান্তের বান্দ্রার কার্টার রোড অ্যাপার্টমেন্ট থেকে উদ্ধার হয় অভিনেতার দেহ। সুশান্তের বাবা রিয়া ও তাঁর গোটা পরিবারের বিরুদ্ধে সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ আনেন গত ২৫ জুলাই। সুশান্তের মৃত্যুর সঙ্গে জড়িত আর্থিক তছরূপের মামলার তদন্তে নেমে রিয়ার মাদকযোগের হদিশ পায় ইডি। সেই সূত্র ধরে বলিউডের মাদককাণ্ডের তদন্তে নামে দেশের কেন্দ্রীয় মাদক নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এই মামলায় গত সেপ্টেম্বরে গ্রেফতার করা হয়েছিল রিয়া চক্রবর্তীর ভাই শৌভিক চক্রবর্তী, সুশান্তের বাড়ির ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডা এবং দীপেশ সাওয়ান্তকে। পরবর্তীকে গ্রেফতার হন রিয়াও। আপতত জামিনে মুক্ত রয়েছেন চারজনেই।

বন্ধ করুন