বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ৫০ বছর পর নিভল অমর জওয়ান জ্যোতি, অনির্বাণ শিখা মিশল ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে
অনির্বাণ শিখা মিশল ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)
অনির্বাণ শিখা মিশল ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)

৫০ বছর পর নিভল অমর জওয়ান জ্যোতি, অনির্বাণ শিখা মিশল ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে

  • ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মত্যাগ করা ভারতীয় সেনাদের প্রতি শ্রদ্যাজ্ঞাপন করতে অমর জ্যোতি প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী।

দীর্ঘ পাঁচ দশক পর নিভল অমর জওয়ান জ্যোতি। আজকে এই শিখা মিশে যাওয়ার খবর প্রকাশ হতেই বিতর্কের ঝড় তুলেছিলেন রাহুল গান্ধী সহ একাধিক কংগ্রেস নেতা। তবে বিতর্ক সত্ত্বেও অমর জ্যোতির অনির্বাণ শিখা এদিন মিশে গেল ‘ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়াল’ বা ‘জাতীয় যুদ্ধ স্মারক’-এর প্রজ্বলিত অগ্নিশিখার সঙ্গে। উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মত্যাগ করা ভারতীয় সেনাদের প্রতি শ্রদ্যাজ্ঞাপন করতে অমর জ্যোতি প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী।

উল্লেখ্য, ২০১৯-এর ২৫ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উদ্বোধন করেন এই জাতীয় যুদ্ধ স্মারক। স্বাধীনতা-পরবর্তী পর্যায়ে ভারতীয় সেনার আত্মবলিদানকে শ্রদ্ধা জানাতেই এই স্মারক। কেন ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে মিশেছে অমর জওয়ান জ্যোতি? কেন্দ্রের বক্তব্য, ইন্ডিয়া গেটে খোদাই করা ৯০ হাজার সেনার কেউই ১৯৭১ সালের যুদ্ধে অংশ নেননি। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে অংশ নিয়ে শহিদ হওয়া জওয়ানদের নাম খোদাই করা সেখানে। যদিও অমর জ্যোতির উদ্দেশ্য ছিল ৭১-এর যুদ্ধে শহিদ জওয়ানদের প্রতি সম্মান জ্ঞাপন। আর এই কারণেই ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে স্থানান্তরিত করা হচ্ছে অমর জওয়ান জ্যোতিকে।

নতুন ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে ২৫ হাজার ৯৪২ জন শহিদের নাম খোদাই করা আছে। ১৯৪৭-৪৮ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কাশ্মীরে যুদ্ধ, ১৯৬২ সালে ভারত-চিন যুদ্ধ, ১৯৬৫ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ, ১৯৯৯ সালের কার্গিল যুদ্ধ, গালওয়ান সংঘর্ষ, সব যুদ্ধেই আআত্মবলিদান করা জওয়ানদের নাম রয়েছে সেখানে।

বন্ধ করুন