ছবিটি প্রতীকী।
ছবিটি প্রতীকী।

সাইবার প্রতারকের ফাঁদে চিকিত্সক, খোয়ালেন ৩৭,০০০

ই-ওয়ালেট সংস্থার কর্মী পরিচয় দিয়ে প্রবীণ চিকিত্সকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে দুই দফায় ৩৭ হাজার টাকা হাতাল প্রতারক। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

সাইবার প্রতারণার শিকার হলেন ৬৯ বছরের চিকিত্সক। একটাকা চেয়ে তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকে ৩৭ হাজার টাকা হাতাল প্রতারক।

মুম্বইয়ের দহিসরে ওই চিকিত্সকের ক্লিনিক রয়েছে বলে জানিয়েছে বোরিভালি পুলিশ। গত ১৪ ডিসেম্বর আর্থিক প্রতারণা ও ভুয়ো পরিচয় বহনের অভিযোগে থানায় এফআইআর দায়ের করেন ওই চিকিত্সক।

চিকিত্সকের দাবি, মোবাইল ফোন এবং অন্যান্য বিল মেটাতে তিনি একটি জনপ্রিয় ই-ওয়ালেট ব্যবহার করেন। গত ৮ ডিসেম্বর সকাল ১০.৩০ মিনিটে তিনি একটি এসএমএস পান যাতে বলা হয় যে, ওঁর ই-ওয়ালেট অ্যাকাউন্টটি সাময়িক বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। মেসেজের উত্তর না দেওয়ায় কিছু ক্ষণ পরেই তাঁকে ফোন করে প্রতারক।

নিজেকে ওই ই-ওয়ালেট সংস্থার কর্মী পরিচয় দিয়ে সে জানায়, কেওয়াইসি প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ না করার জন্য তাঁর অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। অ্যাকাউন্ট চালু রাখতে গেলে তাঁকে একটাকা দিতে বলা হয়।

চিকিত্সক জানিয়েছেন, ‘সে আমার প্যান ও আধার কার্ড নম্বর চায়। কিন্তু তার পরে জানায় যে সেগুলি কাজ করছে না এবং তার পর একটি লিংক পাঠিয়ে তাতে ক্লিক করতে বলে।’

তিনি বলেন, ‘ওই লিংক ক্লিক করে আমার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের বিস্তারিত তথ্য দিয়ে একটাকা জমা দিই। তার পরেই ব্যাঙ্ক থেকে এসএমএস পাই যে আমার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ৩৪,৯৮০ টাকা তোলা হয়েছে। আমি ডেবিট কার্ড ব্লক করে মোবাইল সুইচ অফ করে দিই, কিন্তু তার পরেও ফের ২,০০০ টাকা আমার অ্যাকাউন্ট থেকে তোলা হয়।’

প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরে বোরিভালি থানায় এসে অভিযোগ জানান প্রবীণ চিকিত্সক। এফআই-এর ভিত্তিতে ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

বন্ধ করুন