বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ইটের বদলে পাটকেল, টিকা নেওয়া থাকলেও ব্রিটিশদের নিভৃতবাসের নির্দেশ ভারতের:রিপোর্ট
ইটের বদল পাটকেল, টিকা নেওয়া থাকলেও ব্রিটিশদের নিভৃতবাসের নির্দেশ ভারতের: রিপোর্ট। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
ইটের বদল পাটকেল, টিকা নেওয়া থাকলেও ব্রিটিশদের নিভৃতবাসের নির্দেশ ভারতের: রিপোর্ট। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

ইটের বদলে পাটকেল, টিকা নেওয়া থাকলেও ব্রিটিশদের নিভৃতবাসের নির্দেশ ভারতের:রিপোর্ট

  •  কাজ হয়নি অনুরোধে। তাই এবার পালটা পদক্ষেপ করল ভারত সরকার।

কাজ হয়নি অনুরোধে। তাই এবার পালটা পদক্ষেপ করল ভারত সরকার। করোনাভাইরাসের টিকা নেওয়া থাকলেও ভারতে আগত ব্রিটিশদের বাধ্যতামূলকভাবে ১০ দিনের নিভৃতবাসে থাকতে হবে। সেইসঙ্গে আরটি-পিসিআর রিপোর্ট লাগবে। যে নিয়ম আগামী ৪ অক্টোবর থেকে কার্যকর হবে। সূত্র উদ্ধৃত করে এমনটাই জানিয়েছে সংবাদসংস্থা এএনআই।

ওই সূত্র জানিয়েছে, ব্রিটেন থেকে যে ব্রিটিশ নাগরিকরা ভারতে আসবেন, তাঁদের উড়ানের আগে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করতে হবে। ভারতে নামার পর বিমানবন্দরেও করতে হবে আরটি-পিসিআর পরীক্ষা। ভারতে পৌঁছানোর আটদিনের মাথায় আবারও একবার আরটি-পিসিআর টেস্ট করতে হবে। করোনাভাইরাস টিকা নেওয়া থাকলেও সেই নিয়মের হেরফের হবে না বলে ওই সূত্র জানিয়েছে। পাশাপাশি ওই সূত্রকে উদ্ধৃত করে এএনআই জানিয়েছে, ভারতে আসার পর ব্রিটেনের নাগরিকদের বাধ্যতামূলকভাবে ১০ দিন নিভৃতবাসে কাটাতে হবে। সেক্ষেত্রেও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি টিকা নিলেও কোনও ছাড় মিলবে না।

সম্প্রতি ব্রিটেনের জারি করা করোনাভাইরাস টিকা সংক্রান্ত নয়া নিয়মে জানানো হয়, যে ভারতীয়রা অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং অ্যাস্ট্রোজেনেকার ভারতীয় সংস্করণ কোভিশিল্ড নিয়েছেন, তাঁদের টিকাহীন বলে বিবেচনা করা হবে। ব্রিটেনে নামার পর ওই ভারতীয়দের ১০ দিনের বাধ্যতামূলক নিভৃতবাসে থাকতে হবে বলে নির্দেশিকায় জানানো হয়। যে নির্দেশিকা আগামী ৪ অক্টোবর থেকে কার্যকর হবে। তার জেরে সমস্যায় পড়েছেন ভারতীয়রা। কারণ ভারতে মূলত কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সিন দেওয়া হচ্ছে। ভারত বায়োটেকের টিকা কোভ্যাক্সিন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু) অনুমোদন পায়নি। এবার কোভিশিল্ড প্রাপকদের ‘টিকাহীন’ বিবেচনা করলে চরম দুর্ভোগে পড়তে হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন ভারতীয়রা। সেই পরিস্থিতিতে বিষয়টি দ্রুত সমাধানের আর্জি জানিয়েছিল নয়াদিল্লি। বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকরও। কিন্তু তাতেও কাজ না হওয়ায় পালটা পদক্ষেপ করা হল বলে সংশ্লিষ্ট মহলের বক্তব্য।

বন্ধ করুন