বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > সাতদিনে করোনা আক্রান্ত ৫০ সেবায়েত, আবারও দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ জগন্নাথ মন্দির
পুরীর জগন্নাথদেব
পুরীর জগন্নাথদেব

সাতদিনে করোনা আক্রান্ত ৫০ সেবায়েত, আবারও দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ জগন্নাথ মন্দির

  • আগামী ১৫ মে, অক্ষয় তৃতীয়া উৎসব পর্যন্ত জগন্নাথ মন্দিরের দরজা বন্ধ থাকবে।

ফের বন্ধ হয়ে গেল পুরীর জগন্নাথ মন্দির। আগামী ১৫ মে পর্যন্ত মন্দিরের দরজা বন্ধ থাকবে। ওড়িশায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। আক্রান্তের সংখ্যা যেভাবে বাড়ছে, সেকথা মাথায় রেখেই পুরীর মন্দিরের দরজা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল জগন্নাথ মন্দির প্রশাসন। এর আগে করোনার প্রথম ঢেউয়ের সময়ে পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের দরজা কিছুদিনের জন্য বন্ধ ছিল।

জগন্নাথ মন্দিরের মুখ্য প্রশাসক কৃষাণ কুমার একটি ভার্চুয়াল বৈঠক করেন। বৈঠকের পর মন্দিরের মুখ্য প্রশাসক বলেন, ‘‌আগামী ১৫ মে, অক্ষয় তৃতীয়া পর্যন্ত জগন্নাথ মন্দিরের দরজা বন্ধ থাকবে।তবে সেবায়েত ও মন্দির আধিকারিকদের সাহায্যে মন্দিরের প্রতিদিনের পুজোর আচার ব্যবহার চলবে। জগন্নাথদেবের সেবায় যাঁরা নিয়োজিত, তাঁদের স্বাস্থ্যের বিষয়টিকে বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। তাই প্রতিদিন মন্দিরের সেবায়িত ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের স্ক্রিনিং ও করোনা পরীক্ষা হবে। কারণ, যদি কেউ করোনায় আক্রান্ত হয়ে থাকেন, তাহলে যাতে তাঁদের দ্রুত চিকিৎসা করানো সম্ভব হয়।’‌ একইসঙ্গে মুখ্য প্রশাসক বলেন, ‘‌নীলাদ্রি ভক্ত নিবাসে কোভিড কেয়ার সেন্টার রয়েছে।যাঁরা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন, সেখানে তাঁদের চিকিৎসা করা হবে। যাঁদের অবস্থা গুরুতর, তাঁদের ভুবনেশ্বরে স্থানান্তরিত করা হবে।’‌ 

রাজ্য প্রশাসনের রিপোর্ট অনুযায়ী, পুরীতে শনিবার নতুন করে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯৪ জন। গত সাতদিনে ৫০ জন সেবায়েত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁরা সবাই হরিদ্বারে কুম্ভ মেলায় গিয়েছিলেন। পরিস্থিতির গুরুত্ব বিচার করেই রাজ্য প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, যাঁরা মন্দিরের কাজের সঙ্গে যুক্ত তাঁদের সবাইকে মাস্ক পরতে হবে।স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে ও সামাজিক দুরত্ব মেনে চলতে হবে।পাশাপাশি ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রক্রিয়াও চলবে। বিশেষ করে যারা পুরীর রথযাত্রা উৎসবে জগন্নাথ, বলরাম ও সুভদ্রার রথ তৈরির দায়িত্বে থাকবেন, তাঁদের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। ভুবনেশ্বরেও লিঙ্গরাজ মন্দিরের দরজাও দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ থাকছে। লিঙ্গরাজ মন্দিরের অশোকাষ্টমী উৎসব এবার পুণ্যার্থীদের ছাড়াই পালিত হবে।

বন্ধ করুন