কাবুল হামলায় নিহতদের শেষকৃত্যে এক শিখ কিশোরী (ছবি সৌজন্য এপি)
কাবুল হামলায় নিহতদের শেষকৃত্যে এক শিখ কিশোরী (ছবি সৌজন্য এপি)

Kabul Gurudwara Attack: কাবুলে গুরুদ্বারায় ISIS হামলায় জড়িত এক ভারতীয়

  • গত বুধবার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের একটি গুরুদ্বারায় জঙ্গি হামলায় কমপক্ষে ২৫ জনের মৃত্যু হয়।

কাবুলের গুরুদ্বারা হামলার ঘটনায় জড়িত ছিল এক ভারতীয়। ভারতের গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, আদতে কেরালার কাসারগড়ের ওই যুবকের নাম আবু খালিদ আল হিন্দি। সে ইসলামিক স্টেটের খোরাসান প্রদেশের (আইএসকেপি) শাখার সঙ্গে যুক্ত ছিল। আফগান পুলিশের গুলিতে তার মৃত্যু হয়েছে।

আরও পড়ুন : মুখ্যমন্ত্রীর পথেই হাঁটলেন নুসরত, বাজারে গিয়ে করোনা নিয়ে সচেতনতার প্রচার

গত বুধবার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের একটি গুরুদ্বারায় জঙ্গি হামলায় কমপক্ষে ২৭ জনের মৃত্যু হয়। আহত হন আরও ২৫ জন। সেই ঘটনার দায় স্বীকার করে আইএস। জঙ্গি সংগঠনের নিউজলেটার ‘আল নাবা’-য় আল হিন্দির একটি ছবিও প্রকাশ করা হয়। দাবি করা হয়, কাশ্মীরে মুসলিমদের কষ্টের প্রতিশোধ নিতে হামলা চালানো হয়েছে।

আরও পড়ুন : Coronavirus Update India: মৃত্যু করোনা আক্রান্তের, কোয়ারেন্টাইনে ৩ স্ত্রী ও ১৬ সন্তান!

যদিও ভারতীয় গোয়েন্দাদের বক্তব্য, হামলার ঘটনায় পাক মদতের স্বপক্ষে তাঁদের কাছে যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরেই ভারতীয়দের গায়ে জঙ্গি তকমা লাগানোর চেষ্টা করে আসছে পাকিস্তান। আর সেই কাজে পাকিস্তানকে সাহায্য করছে আইএসকেপি।

আরও পড়ুন : COVID-19 Update: সংক্রমণ রুখতে মোদীর ভরসা 'করোনা কবচ'

সন্ত্রাস-বিরোধী আধিকারিকরা জানিয়েছেন, সংযুক্ত আরব আমিরশাহির স্বাস্থ্য কার্ড অনুযায়ী আল হিন্দির আসল নাম মহসিন ত্রিকারিপুর ওরফে মহম্মদ মুহাসিন নাঙ্গারথ আবদুল্লা। সে ১৯৯১ সালের ১৯ মার্চ কাসারগড়ে জন্মেছিল। কাসারগড়ের ত্রিকারিপুরে তার পরিবারের আসবাবপত্রের ছোটো দোকান আছে।

আরও পড়ুন : Covid-19 update: ভারতে করোনাভাইরাসের প্রথম ছবি মিলল পুণের পরীক্ষাগারে

স্কুলছুট আল হিন্দি ২০০৭ সালে কেরালা ছেড়ে বেঙ্গালুরু পাড়ি দিয়েছিল। সেখান থেকে মালয়েশিয়া ও দুবাইয়ে গিয়েছিল। মাঝেমধ্যে বাড়ি ফিরলেও মালয়েশিয়া ও দুবাইয়ে সে কি কাজ করত, তা নিয়ে ধন্দ রয়েছে। তবে মালয়েশিয়ায় একটি হোটেলে কাজ করতে বলে বিশ্বাস গোয়েন্দাদের। বেঙ্গালুরুতেও কিছুদিন সে হোটেলে কাজ করেছিল।

আরও পড়ুন : Covid-19: করোনার বিরুদ্ধে নিরলস লড়াই, ৫২ দিন বাড়ি যাননি লখনউয়ের বৈজ্ঞানিক

গোয়েন্দা কর্তাদের বক্তব্য, দু'বছর আগে সে দুবাই গিয়েছিল। সেখানে সংস্পর্শে এসেছিল পাকিস্তানের চরমপন্থী সংগঠনের। প্রাথমিকভাবে লস্কর-ই-তইবার সঙ্গে যুক্ত থাকলেও পরবর্তীতে আইএসে যোগ দিতে আফগানিস্তান ও সিরিয়ায় পাড়ি দিয়েছিল। ছ'মাসের আগে কেরালায় বাড়িতে ফোন করেছিল সে। মা'কে জানিয়েছিল, সে আফগানিস্তানে রয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কেরালার এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক বলেন, 'তখনই পরিবারের সঙ্গে তার শেষ কথা হয়েছিল।'

আরও পড়ুন : Covid-19: ব্যক্তিগত ও গৃহ ঋণের ওপর তিন মাস EMI দিতে হবে না, বললেন SBI প্রধান

ভারতের সুরক্ষা বাহিনীর এক উচ্চপদস্থ কর্তা বলেন, 'যদি আইএসকেপি-র দাবি সত্য প্রমাণিত হয়, দ্বিতীয় ভারতীয় হিসেবে বিদেশের মাটিতে সন্ত্রাস হামলা চালানোয় মুহাসিনের নাম জুড়বে।'

বন্ধ করুন