বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কন্নড়কে 'নিকৃষ্টতম ভাষা' আখ্যা, ক্ষমা চাওয়ায় গুগলের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার
ফাইল ছবি : রয়টার্স  (REUTERS)
ফাইল ছবি : রয়টার্স  (REUTERS)

কন্নড়কে 'নিকৃষ্টতম ভাষা' আখ্যা, ক্ষমা চাওয়ায় গুগলের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার

  • কন্নড়কে 'অপমান' করার ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছিল গুগল।

কন্নড়কে 'ভারতের নিকৃষ্টতম ভাষা' আখ্যা দিয়ে বিপাকে পড়েছিল গুগল। সংস্থার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছিল কর্ণাটক হাইকোর্টে। পরবর্তীতে অবশ্য কন্নড়কে 'অপমান' করার ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছিল গুগল। আর সেই ক্ষমায় সন্তুষ্ট হয়ে মামলা প্রত্যাহার করেন মামলাকারী। মালাটি কর্ণাটক হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতি সতীশ চন্দ্র শর্মা এবং বিচারপতি সচিন শঙ্কর মাগাদুমের ডিভিশন বেঞ্চে চলছিল। বিচারপতিরা আবেদনকারীকে জানান যে গুগল ইতিমধ্য ঘটনার প্রেক্ষিতে গুগল ক্ষমা চেয়ে জানিয়েছে যে এরম ভুল ভবিষ্যতে হবে না। এরপরই মামলা প্রত্যাহারের আবেদন জানান মামলাকারীর আইনজীবী, যা গ্রহণ করে উচ্চ আদালত।

উল্লেখ্য, গত ৩ জুন বহু কন্নড়ভাষী গুগলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দাবি করেন, দেশের মধ্যে নিকৃষ্টতম ভাষা কোনটি এই প্রশ্নের উত্তর জানতে গুগলে সার্চ করলে তার জবাবে কন্নড়ের নাম নেওয়া হচ্ছে। এরপর এনিয়ে নিন্দার ঝড় ওঠে দেশ জুড়ে। এমন একটি প্রাচীন সমৃদ্ধ ভাষাকে কেন 'নিকৃষ্টতম ভাষা' আখ্যা দেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে হতবাক হন অনেকেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় গুগলের বিরুদ্ধে একের পর এক নিন্দাসূচক পোস্ট করতে শুরু করেন অনেকেই।

দক্ষিণ ভারতে প্রায় ৪০ মিলিয়ন মানুষ কন্নড়ে কথা বলেন। এহেন ভাষাকে 'অপমান' করায় গুগলকে অবিলম্বে ক্ষমা চাওয়ার দাবি উঠতে থাকে। সেই সময় হিন্দুস্তান টাইমসের তরফে গুগলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাদের তরফে জানানো হয়, ভুল বোঝাবুঝির জন্য ক্ষমাপ্রার্থী তাঁরা। বিষয়টি সংশোধন করা হয় এরপর। বলা হয়, অন্যের আবেগে কোনও আঘাত দিয়ে থাকলে ক্ষমা চাওয়া হচ্ছে।

বন্ধ করুন