বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > প্রেমিকাকে খুনের পরে আত্মহত্যার আগে থানায় স্বীকারোক্তি যুবকের
ছবিটি প্রতীকী।
ছবিটি প্রতীকী।

প্রেমিকাকে খুনের পরে আত্মহত্যার আগে থানায় স্বীকারোক্তি যুবকের

  • আগ্রা জেলার খেরাগড় থানায় পৌঁছে তরুণীকে হত্যার কথা কবুল করে হেত সিং তোমার।তখনই সে বিষ খাওয়ার কথাও কবুল করে।কয়েক ঘণ্টা পরেই সে হাসপাতালে মারা যায়।

আত্মঘাতী হওয়ার উদ্দেশে বিষ খেয়ে থানায় গিয়ে ১৯ বছরের তরুণীকে হত্যার কথা স্বীকার করল বাইশের যুবক। পরে হাসপাতালে মারা যায় হেত সিং তোমার নামে ওই ব্যক্তি।

সোমবার আগ্রা জেলার খেরাগড় থানায় পৌঁছে তরুণীকে হত্যার কথা কবুল করে হেত সিং। এসপি গ্রামীণ (পশ্চিম) রবি কুমার জানিয়েছেন, তখনই সে বিষ খাওয়ার কথাও কবুল করে।

সঙ্গে সঙ্গে হেত সিংকে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যায় পুলিশ। সেখানে তাকে আগ্রার এস এন মেডিক্যাল কলেজে রেফার করা হয়। কুমার জানিয়েছেন, হাসপাতালে চিকিত্সা করার সময়েই হেত সিংয়ের মৃত্যু হয়।

শনিবার একটি পরিত্যক্ত বাড়ির ভিতর থেকে এক তরুণীর দেহ উদ্ধার করা হয়েছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ। ধারালো অস্ত্র দিয়ে তরুণীর গলায় কোপ বসানো হয়েছিল বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছিল। এরপর থেকেই হত্যাকারীর সন্ধানে অনুসন্ধানে নামে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার সকাল থেকেই ওই তরুণী নিখোঁজ ছিলেন। ওই দিন বিকেলে তাঁর দেহ উদ্ধার করার পরে একটি খুনের মামলা দায়ের করা হয়। নিহতের মোবাইল ফোন কল রেকর্ড ঘেঁটে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে মূল অপরাধী হিসেবে তোমারের সন্ধানে ছিল পুলিশ।

কিন্তু তার বাড়িতে হানা দিয়েও তোমারকে খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন এসপি কুমার। সোমবার থানায় এসে অপরাধ স্বীকার করে সে যে বয়ান দেয়, তা ভিডিয়ো রেকর্ডিং করা হয়েছে বলে থানা সূত্রে জানা গিয়েছে।

পুলিশের দাবি, নিহত তরুণীর গ্রামে এক পরিবারে তোমারের বোনের বিয়ে হয়েছিল। সেই সূত্রে ওই গ্রামে যাতায়াতের ফলে তরুণীর সঙ্গে হেত সিংয়ের ঘনিষ্ঠ প্রণয়ের সম্পর্ক তৈরি হয়। তবে সম্প্রতি ওই তরুণীর সঙ্গে অন্য এক পুরুষের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে বলে হেত সিংয়ের সন্দেহ হয়। এরপর তরুণীর গ্রামে গিয়ে তাঁকে নির্জন স্থানে ডেকে এনে গলায় ছুরির কোপ বসিয়ে সে হত্যা করে। ছুরিটি সে পুকুরে ছুড়ে ফেলে দিয়েছিল বলে মৃত্যুর আগে পুলিশকে সে জানিয়ে গিয়েছে।

বন্ধ করুন