বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > নম্বরপ্লেটে লেখা 'SEX', সাধের স্কুটিই মাথাব্যথা হয়ে দাঁড়াল তরুণীর!
শখ করে কেনা স্কুটির নম্বর প্লেট যখন ' সেক্স', অস্বস্তিতে তরুণী। ছবিটি প্রতীকী।
শখ করে কেনা স্কুটির নম্বর প্লেট যখন ' সেক্স', অস্বস্তিতে তরুণী। ছবিটি প্রতীকী।

নম্বরপ্লেটে লেখা 'SEX', সাধের স্কুটিই মাথাব্যথা হয়ে দাঁড়াল তরুণীর!

  • এখন মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ওই তরুণী এবং তার পরিবারের লোকেদের কাছে।

যে কোনও মোটর গাড়ির ক্ষেত্রে নম্বর প্লেট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নম্বর প্লেটে চোখ পড়ে সকলেরই। কিন্তু, সেই নম্বর প্লেটে যদি লেখা থাকে 'সেক্স' (এস ই এক্স), তাহলে কি বিশ্বাস করবেন! এরকম কি কখনও হতে পারে? তবে জেনে অবাক হবেন এরকমই ঘটল নয়াদিল্লির এক তরুণীর সঙ্গে। যা এখন মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ওই তরুণী এবং তার পরিবারের লোকেদের কাছে। ইতিমধ্যেই এরকম নম্বর প্লেট নিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের সংবাদে উঠে এসেছেন ওই তরুণী।

নয়াদিল্লির বাসিন্দা ওই তরুণী একজন কলেজ পড়ুয়া। কলেজে যাওয়ার জন্য তিনি বাবার কাছে স্কুটি কিনে দেওয়ার জন্য আবদার করেছিলেন। তাই মেয়ের শখ পূরণের জন্য বাবা তাঁকে স্কুটি কিনে দেন। নিজের স্কুটি পেয়ে স্বাভাবিকভাবেই খুশি ছিলেন ওই তরুণী। স্কুটিতে বেশ কয়েকদিন চড়ে ঘুরেও বেড়ালেন। কিন্তু নম্বরপ্লেট আসার পরেই ঘটল বিপত্তি। তরুণীর খুশি যেন মাথা ব্যথায় পরিণত হল। তরুণী যে নম্বর প্লেট পেলেন তাতে, সংখ্যার সঙ্গে লেখা ছিল 'সেক্স' শব্দটি। আর এই নাম্বার প্লেট দেখার পরেই আঁতকে ওঠেন পরিবারের সকলেই।রাস্তায় বেরনোর পর তাঁকে লক্ষ্য করে অশ্লীল মন্তব্য বা কটূক্তি উড়ে আসছিল।

এদিকে, নম্বর প্লেটের নম্বর বদলানোর জন্য আরটিও দফতরে আবেদন জানান তিনি। সেখানে কোনও কাজ না হওয়ায় দিল্লি পরিবহণ দফতরের কমিশনের কাছে দ্বারস্থ হয় তাঁর পরিবার। কিন্তু পরিবহণ কমিশনের তরফে জানানো হয়, নম্বর প্লেট বেরিয়ে গেলে তা পরিবর্তন করার কোনও আইন নেই। এই অবস্থায় বাধ্য হয়ে স্কুটিকে ঘরবন্দি করে রাখতে হলো তরুণীকে। তবে কীভাবে এই লেখা নম্বর প্লেট বের হল, তাতে প্রশ্ন উঠেছে। এর জন্য দিল্লির পরিবহণ দফতরকেই দায়ী করেছেন তাঁর পরিবারের লোকেরা।

বন্ধ করুন