বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'ভারত জোড়ো' যাত্রা নিয়ে ফের বিতর্ক! এবার শিশুদের 'রাজনৈতিকভাবে' ব্যবহারের অভিযোগ গেল নির্বাচন কমিশনের কাছে
ভারত জোড়ো যাত্রা ঘিরে অভিযোগ। (PTI Photo) (PTI)

'ভারত জোড়ো' যাত্রা নিয়ে ফের বিতর্ক! এবার শিশুদের 'রাজনৈতিকভাবে' ব্যবহারের অভিযোগ গেল নির্বাচন কমিশনের কাছে

  • তাদের চিঠিতে এনসিপিসিআর জানিয়েছে যে তারা এই বিষয়ে একটি অভযোগ পত্র পায়। তার নিরিখেই এই পদক্ষেপ। সেই অভিযোগপত্রে লেখা ছিল, রাহুল গান্ধী ও কংগ্রেস ‘জওহর বাল মঞ্চ’কে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে। শিশুদের এখান থেকে রাজনৈতিক কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। এনসিপিআর বলছে, এই অভিযোগপত্রে লেখা হয়েছে, কংগ্রেসের ‘ভারত জোড়ো’ যাত্রায় বিভিন্ন ছবিতে শিশুদের মুখ দেখা যাচ্ছে।

শিশুদের ‘রাজনৈতিকভাবে’ ব্যবহার করার অভিযোগ উঠল রাহুল গান্ধী ও কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। এই অভিযোগ জানিয়ে, 'ন্যাশনাল কমিশন ফর প্রোটেকশন অফ চাইল্ড রাইটস' দ্বারস্থ হয়েছে নির্বাচন কমিশনের। তাদের দাবি, কংগ্রেসের ‘জওহর বাল মঞ্চ’ এ শিশুদের রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে কংগ্রেস ও রাহুল গান্ধী।

তাদের চিঠিতে এনসিপিসিআর জানিয়েছে যে তারা এই বিষয়ে একটি অভযোগ পত্র পায়। তার নিরিখেই এই পদক্ষেপ। সেই অভিযোগপত্রে লেখা ছিল, রাহুল গান্ধী ও কংগ্রেস ‘জওহর বাল মঞ্চ’কে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে। শিশুদের এখান থেকে রাজনৈতিক কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। এনসিপিআর বলছে, এই অভিযোগপত্রে লেখা হয়েছে, কংগ্রেসের ‘ভারত জোড়ো’ যাত্রায় বিভিন্ন ছবিতে শিশুদের মুখ দেখা যাচ্ছে। সেই সমস্ত শিশুদের নিয়েই উঠছে প্রশ্ন। শিশুদের স্লোগান উচ্চারণ করে হাতে কংগ্রেসের পতাকা নিয়েও পথ চলতে দেখা যাচ্ছে। 'ন্যাশনাল কমিশন ফর প্রোটেকশন অফ চাইল্ড রাইটস' এর তরফে চেয়ারপার্সন প্রিয়াঙ্ক কানুনগো এই বিষয়টি নিয়েই মুখ খোলেন। ভারতীয় সংবিধানের ৩২৪ ধারা ও রিপ্রেজেন্টেশন অফ অ্যাক্ট ১৯৫১ সালের আইনের নিরিখে ২৯ এর এ ধারার প্রসঙ্গ তুলে  এই শিশুদের রাজনৈতিক মিছিলে অংশগ্রহণ নিয়ে বক্তব্য রাখেন প্রিয়াঙ্ক কানুনগো।দুর্গাপুজোর মাসেই পঞ্চমহাপুরুষ যোগ! অর্থভাগ্য থেকে কেরিয়ারে সাফল্য কোন কোন রাশির

প্রিয়ঙ্কা কানুনগো বলছেন, এই নিরিখে জাতীয় কংগ্রেস নির্বাচন কমিশনের দেওয়া বিধিও ভঙ্গ করছে রাজনৈতিক মঞ্চে শিশুদের নিয়ে এসে। তিনি বলছেন, ভারতীয় বিধি অনুযায়ী, ১৮ বছরের উর্ধ্বে সকলেই রাজনৈতিক পার্টিতে যোগ দিতে পারেন। সেই জায়গা থেকে রাজনৈতিক সভায় শিশুদের যোগদান ও স্লোগান ইত্যাদি ইস্যু নির্বাচন কমিশনের দেওয়া বিধিভঙ্গের শামিল। 

 

 

 

 

 

 

 

বন্ধ করুন