বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Tripura: মন্ত্রী হলেন রামপ্রসাদ? মানিক সাহার নাম শুনেই ছুঁড়েছিলেন চেয়ার
রাম প্রসাদ পাল।

Tripura: মন্ত্রী হলেন রামপ্রসাদ? মানিক সাহার নাম শুনেই ছুঁড়েছিলেন চেয়ার

  • এবারই প্রথম নয়, এর আগেও মানিক সাহার বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন রামপ্রসাদ পাল। গত ফেব্রুয়ারি মাসে মানিক সাহাকে দলের রাজ্য সভাপতির পদ থেকে সরানোর দাবি তুলেছিলেন বিজেপি নেতৃত্বের একাংশ। সেই মানিক সাহাকে মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসানো হবে একথা জেনে ক্ষোভে ফেটে পড়েছিলেন রামপ্রসাদ পাল। তবে সেই রামপ্রসাদকে বিমুখ করেনি বিজেপি।

রাম প্রসাদ পাল। মানিক সাহার নাম যেদিন ত্রিপুরার পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে ঘোষণা করেছিলেন বিপ্লব দেব, সেদিনই তুমুল বিক্ষোভ ফেটে পড়েছিলেন রাম প্রসাদ পাল। দলের কেন্দ্রীয় নেতার সামনেই তিনি চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তাঁর সঙ্গে একাধিক বিধায়ক সুর মেলান। তাঁদের সঙ্গে আলোচনা না করেই একতরফাভাবে মানিক সাহার নাম ঘোষণা করা হয় বলে তাঁদের অভিযোগ। রাগে চেয়ারও ছুঁড়েছিলেন তিনি। এদিকে সেই রামপ্রসাদ পালকে আদৌ মন্ত্রিসভায় রাখা হবে কি না তা নিয়ে নানা জল্পনা চলছিল। তবে এবার যাবতীয় জল্পনায় জল ঢেলে সেই বিক্ষুব্ধ রামপ্রসাদ পালকেই মন্ত্রিসভায় ঠাঁই দিলেন মানিক সাহা।

 

তবে এবারই প্রথম নয়, এর আগেও মানিক সাহার বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন রামপ্রসাদ পাল। গত ফেব্রুয়ারি মাসে মানিক সাহাকে দলের রাজ্য সভাপতির পদ থেকে সরানোর দাবি তুলেছিলেন বিজেপি নেতৃত্বের একাংশ। সেই মানিক সাহাকে মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসানো হবে একথা জেনে ক্ষোভে ফেটে পড়েছিলেন রামপ্রসাদ পাল। তবে সেই রামপ্রসাদকে বিমুখ করেনি বিজেপি। কিন্তু কেন রামপ্রসাদ পালকে ফের মন্ত্রিসভায় ঠাঁই দেওয়া হল?

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, আসলে ত্রিপুরায় নির্বাচন হতে আর ১০ মাস বাকি। তার আগে দলের অন্দরে ক্ষোভ কমানোটা দলীয় নেতৃত্বের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ। সেকারণেই নতুন করে ক্ষোভ দেখা দিলে সমস্যা হতে পারে। ইতিমধ্য়েই সুদীপ রায় বর্মন ও আশিস সাহা দল ছেড়েছেন। এদিকে ক্ষোভ মাথাচাড়া দিলে তৃণমূল সহ অন্যান্য বিরোধীদের সুবিধা হতে পারে। সেকারণেই রাম প্রসাদ চ্যাপ্টারে ইতি টেনে তাঁকে ক্যাবিনেটে জায়গা দিল বিজেপি।

বন্ধ করুন