বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > রাত ৮টায় দোকান বন্ধ করলে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করা যায়, আজব যুক্তি পাক মন্ত্রীর

রাত ৮টায় দোকান বন্ধ করলে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করা যায়, আজব যুক্তি পাক মন্ত্রীর

পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খাওয়াজা আসিফ। REUTERS/Maxim Shemetov/File Photo (REUTERS)

জিও নিউজের রিপোর্ট অনুসারে পাকিস্তানি ব্যবসায়ীরা সরকারের এই সিদ্ধান্তকে একেবারেই মানতে পারছে না। কার্যত পাক ব্যবসায়ীদের অনেকেই এই সিদ্ধান্তকে প্রত্যাহার করেছে। এই নিয়মকে বাতিল করার পক্ষে সওয়াল করেছেন তারা।

মল্লিকা সোনি

শক্তি সম্পদ সংরক্ষণের চেষ্টা করছে পাকিস্তান। আর সেই নিরিখে ওই দেশে নাকি দোকানপাটও তাড়াতাড়ি বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু কেন দোকানপাট তাড়াতাড়ি বন্ধ করা হচ্ছে তা নিয়ে পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খাওয়াজা আসিফ এক আজব যুক্তি খাড়়া করেছেন। তবে শুধু এই যুক্তি আজব এমনটাই নয়। বেশ হাস্যকরও।

সেই সংক্রান্ত একটি ভিডিয়ো ইতিমধ্যেই সোশ্য়াল মিডিয়ায় হইচই ফেলে দিয়েছে। সেই ভিডিয়োতে পাক প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে বলতে শোনা যাচ্ছে, যেখানে রাত ৮টায় মার্কেট বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে সেখানে জনসংখ্যা বৃদ্ধি কম হয়ে যাচ্ছে।

পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খাওয়াজা আসিফের এই বক্তব্যকে ঘিরে হাসির রোল নেটপাড়ায়। একজন লিখেছেন পাক সরকারের গবেষণায় একেবারে ব্রিলিয়ান্ট বিষয় উঠে এসেছে। এটা মানব সভ্যতার কাছে একেবারে জিনিয়াস বিষয়। বৈজ্ঞানিক গবেষণার নিরিখে সর্বোচ্চ পুরষ্কার দেওয়া দরকার।

অপর একজন লিখেছেন, এর পেছনে মিথোলজিটা ঠিক কী রয়েছে? গোটা বিশ্বের চিকিৎসা বিজ্ঞান হতবাক হয়ে গিয়েছে। তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছেন।

এদিকে ওই সাংবাদিক বৈঠকে পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খাওয়াজা আসিফ জানিয়েছিলেন সরকারের সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গে। তিনি জানিয়েছিলেন, বিয়েবাড়ির হল রাত ১০টা পর্যন্ত ও বাজার রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত সময়সীমা থাকা দরকার।

 

এদিকে জিও নিউজের রিপোর্ট অনুসারে পাকিস্তানি ব্যবসায়ীরা সরকারের এই সিদ্ধান্তকে একেবারেই মানতে পারছে না। কার্যত পাক ব্যবসায়ীদের অনেকেই এই সিদ্ধান্তকে প্রত্যাহার করেছে। এই নিয়মকে বাতিল করার পক্ষে সওয়াল করেছেন তারা।

এদিকে পাকিস্তানে জন্মনিয়ন্ত্রণ কতটা হয় তা নিয়ে সংশয়টা থেকে গিয়েছে। সম্প্রতি সামনে এসেছিল, পাকিস্তানের এক চিকিৎসক ৬০ বার বাবা হয়েছেন। আরও সন্তানের জন্য তিনি পাত্রী খুঁজছেন। সেটাও বেশ গর্বের সঙ্গে। তিন চারজনের সংসার সামলাতেই যেখানে প্রানান্তকর অবস্থা। সেখানে তিনি এতজনের সংসার সামলাচ্ছেন। তবে এখানেই তিনি রণেভঙ্গ দিচ্ছেন এমনটা নয়। তিনি ভবিষ্যতে আরও সন্তানের বাবা হতে চান। ৫০ বছর বয়সী সর্দার জান মহম্মদ খান খিলজির সম্প্রতি আবার একজন সন্তান হয়েছে। তার নাম হাজি কুশল খান।

ওই ব্যক্তি পেশায় একজন চিকিৎসক। কোয়েতা শহরের কাছে ইস্টার্ন বাইপাস সংলগ্ন এলাকায় তিনি থাকেন। তিনি সব মিলিয়ে ৩জন মহিলাকে বিয়ে করেছেন। এবার ওই ব্যক্তি এবার চতুর্থ একজন মহিলাকে খুঁজছেন। তাঁকেই তিনি বিয়ে করতে চান। আর তার সঙ্গেই আরও সন্তান চান তিনি।

 

বন্ধ করুন