বাংলা নিউজ > ছবিঘর > দীপাবলির বাজির 'রিটার্ন গিফট', লাফিয়ে বাড়ল বায়ুদূষণ, ধোঁয়া ‘হজম করছে’ দিল্লি

দীপাবলির বাজির 'রিটার্ন গিফট', লাফিয়ে বাড়ল বায়ুদূষণ, ধোঁয়া ‘হজম করছে’ দিল্লি

  • নিষেধাজ্ঞা ছিল সরকারের। কিন্তু কোনও লাভ হল না। নিজেদের অসচেতনতার মাশুল গুনতে হচ্ছে দিল্লিবাসীকেই। বৃহস্পতিবার রাত থেকেই দিল্লির বিভিন্ন এলাকায় বায়ুদূষণের মাত্রা লাফিয়ে বেড়ে যায়। শুক্রবার সকালে পরিস্থিতি আরও শোচনীয় হয়ে উঠেছে।
নিষেধাজ্ঞা ছিল সরকারের। কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞাকে ফুৎকারে উড়িয়ে দীপাবলির রাতে বাজি ফাটানো হয়। শুক্রবার সকালেই তার মাশুল গুনতে হল দিল্লিকে। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
1/5নিষেধাজ্ঞা ছিল সরকারের। কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞাকে ফুৎকারে উড়িয়ে দীপাবলির রাতে বাজি ফাটানো হয়। শুক্রবার সকালেই তার মাশুল গুনতে হল দিল্লিকে। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
দীপাবলিতে দিল্লির বায়ুর মান ‘গুরুতর’ হয়ে উঠেছিল। বৃহস্পতিবার বিকেল চারটেয় কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের বুলেটিন অনুযায়ী, সার্বিকভাবে দিল্লিতে বায়ুদূষণের সূচক ছিল ৩৮২ (খুবই খারাপ)। চলতি বছর শীতের মরশুমে এই প্রথম দিল্লির বায়ুদূষণের মাত্রা ‘গুরুতর’ ছাড়াল। (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)
2/5দীপাবলিতে দিল্লির বায়ুর মান ‘গুরুতর’ হয়ে উঠেছিল। বৃহস্পতিবার বিকেল চারটেয় কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের বুলেটিন অনুযায়ী, সার্বিকভাবে দিল্লিতে বায়ুদূষণের সূচক ছিল ৩৮২ (খুবই খারাপ)। চলতি বছর শীতের মরশুমে এই প্রথম দিল্লির বায়ুদূষণের মাত্রা ‘গুরুতর’ ছাড়াল। (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)
এমনিতেই খড় পোড়ানো, শীতল বাতাসের কারণে দিল্লির বায়ুর মাত্রা ক্রমশ কমছিল। দীপাবলির জেরে পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়। বৃহস্পতিবার সেই দূষণের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। বাতাসে সূক্ষ্ম ধূলিকণার (পিএম ২.৫) ঘনত্ব বৃদ্ধি পায়। যা সুরক্ষিত পর্যায়ের থেকে ৩৩ গুণ বেশি। (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)
3/5এমনিতেই খড় পোড়ানো, শীতল বাতাসের কারণে দিল্লির বায়ুর মাত্রা ক্রমশ কমছিল। দীপাবলির জেরে পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়। বৃহস্পতিবার সেই দূষণের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। বাতাসে সূক্ষ্ম ধূলিকণার (পিএম ২.৫) ঘনত্ব বৃদ্ধি পায়। যা সুরক্ষিত পর্যায়ের থেকে ৩৩ গুণ বেশি। (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)
কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, রাত ন'টায় বায়ুদূষণের সূচক পৌঁছে যায় ৪০৪-এ। রাত ১২ টায় গড় বায়ুদূষণের সূচক ছিল ৪২২। ক্রমশ তা খারাপ হতে থাকে। রাত দুটোয় হয় ৪২৮, সকাল ছ'টায় হয় ৪৪৪, সকাল সাতটায় দাঁড়ায় ৪৪৬। সকালে বায়ুদূষণের সূচক ৪৫১-তেও পৌঁছে যায়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
4/5কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, রাত ন'টায় বায়ুদূষণের সূচক পৌঁছে যায় ৪০৪-এ। রাত ১২ টায় গড় বায়ুদূষণের সূচক ছিল ৪২২। ক্রমশ তা খারাপ হতে থাকে। রাত দুটোয় হয় ৪২৮, সকাল ছ'টায় হয় ৪৪৪, সকাল সাতটায় দাঁড়ায় ৪৪৬। সকালে বায়ুদূষণের সূচক ৪৫১-তেও পৌঁছে যায়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
সেই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার রাত থেকেই ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়েছিল দিল্লি। সকালে পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে। সামান্য দূর থেকেও কিছু দেখা যাচ্ছিল না। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
5/5সেই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার রাত থেকেই ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়েছিল দিল্লি। সকালে পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে। সামান্য দূর থেকেও কিছু দেখা যাচ্ছিল না। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
অন্য গ্যালারিগুলি