বাংলা নিউজ > ময়দান > ১৩ বছরে ৩ বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে 'অল ইংল্যান্ড' খেতাবি লড়াই, ফিরে দেখা ইতিহাস
উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের লোগো ও ট্রফি।
উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের লোগো ও ট্রফি।

১৩ বছরে ৩ বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে 'অল ইংল্যান্ড' খেতাবি লড়াই, ফিরে দেখা ইতিহাস

  • আগের দু'বারে ট্রফি ঘরে তোলে ম্যান ইউ ও লিভারপুল।

শুভব্রত মুখার্জি

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে একে অপরকে কঠিন লড়াইয়ের সামনে ফেলতে চলেছে ইপিএলের দুই ধুরন্ধর প্রতিপক্ষ ম্যাঞ্চেস্টার সিটি এবং চেলসি। পেপ গুয়ার্দিওলার প্রশিক্ষনাধীন ম্যাঞ্চেস্টার সিটি তাদের ক্লাবের ইতিহাসে প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে খেলতে চলেছে। অন্যদিকে চেলসির ইতিহাসে এটি তাদের তৃতীয় ফাইনাল খেলবে। প্রসঙ্গত তাদের কোচ থমাস তুচেল যিনি শেষ মরসুমে পিএসজির প্রশিক্ষক ছিলেন । তাঁর প্রশিক্ষনে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে খেলেও বায়ার্ন মিউনিখের হার মানতে হয়েছিল। উল্লেখ্য এই মরসুমের ফাইনাল এই নিয়ে ৩ বার 'অল ইংল্যান্ড' খেতাবি লড়াই হতে চলেছে। প্রসঙ্গত আজ থেকে ১৩ বছর আগে ২০০৮ সালে রাশিয়ার লুঝনিকিতে প্রথমবার ঘটেছিল 'অল ইংল্যান্ড' খেতাবি লড়াই। প্রসঙ্গত প্রথমবারের একটি ফাইনালিস্ট দল চেলসি এই বারের ফাইনালেও অন্যতম দল। আসুন এই আবহে দাঁড়িয়ে একনজরে দেখে নেওয়ার চেষ্টা করি আগের দুইবারের দুই 'অল ইংল্যান্ড' ফাইনালকে।

২০০৮ লুঝনিকি:-

ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড: ১ (৬)
চেলসি: ১ (৫)

রাশিয়ার মাটিতে সেবার উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রচিত হয়েছিল ইতিহাস‌। ইপিএলের দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রেড ডেভিলস নামে খ্যাত ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড সেবার মুখোমুখি হয়েছিল ব্লুজ নামে খ্যাত চেলসির। ৯০ মিনিটের খেলা এবং অতিরিক্ত সময়ের খেলার পরে সেবার খেলার ফল ছিল ১-১। হোসে মরিনহোর কাছ থেকে দায়িত্ব নেওয়ার পরে আব্রাহাম গ্রান্ট চেলসিকে তাদের ইতিহাসে প্রথমবার ফাইনালে পৌঁছে দিয়েছিলেন। ম্যাচে ম্যান ইউকে হেডে করা গোলে এগিয়ে দিয়েছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড সেই গোল শোধ করে ১-১ করেন। ম্যাচে ভিদিচকে ফাউল করে সেবার লাল কার্ড দেখে বেরিয়ে যেতে হয়েছিল দিদিয়ের দ্রোগবাকে। নির্ধারিত সময় এবং অতিরিক্ত সময়তে খেলা অমীমাংসিত থাকার পরে খেলা পেনাল্টিতে গড়ায়। চেলসি অধিনায়ক জন টেরির শট এবং নিকোলাস অ্যানেলকার শট বাঁচিয়ে সেই রাতে ইউরোপীয় ক্লাব ফুটবলের মঞ্চ লাল রঙে রাঙিয়ে ম্যান ইউকে চ্যাম্পিয়ন করিয়েছিলেন এডউইন ভ্যান ডার স্যার।

২০১৯ মাদ্রিদ:-

লিভারপুল: ২
টটেনহ্যাম: ০

এই মরশুমের ফাইনালে পৌঁছানোর পথে দুই ইংরেজ ক্লাব সেমিফাইনালে অসাধারণ বা বলা ভাল দুরন্ত কামব্যাক করেছিল। আয়াক্সের বিরুদ্ধে টটেনহ্যাম এবং বার্সেলোনার বিরুদ্ধে লিভারপুল এই স্বপ্নের কামব্যাক ঘটিয়ে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছিল। মৌসা সিসোকোর হ্যান্ডবলের ফলে ভিএআরের রিপ্লের সাহায্য নিয়ে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে পেনাল্টি দেওয়া হয় লিভারপুলকে। স্পট কিক থেকে গোল করতে ভোলেননি মহম্মদ সালাহ। ম্যাচ শেষ হওয়ার কয়েক মিনিট আগে ডিভক ওরিগির গোলে যুর্গেন ক্লপের ছেলেদের জয় নিশ্চিত হয়।

বন্ধ করুন