বাংলা নিউজ > ময়দান > Who is Brij Bhushan Sharan Singh: স্টেজে থাপ্পড়, BJP-র সাংসদ - কুস্তিগিরদের 'যৌন হেনস্থাকারী' ব্রিজভূষণ আদতে কে?

Who is Brij Bhushan Sharan Singh: স্টেজে থাপ্পড়, BJP-র সাংসদ - কুস্তিগিরদের 'যৌন হেনস্থাকারী' ব্রিজভূষণ আদতে কে?

ব্রিজভূষণ শরণ সিং এবং ভিনেশ ফোগাট। (ফাইল ছবি, সৌজন্যে পিটিআই)

Brij Bhushan Sharan Singh: বরাবরই ‘বাহুবলী’ হিসেবে পরিচিত জাতীয় কুস্তি ফেডারেশনের সভাপতি ব্রিজভূষণ শরণ সিং। অতীতে ডাকাতি, দাঙ্গার মতো বিষয়ে মামলায় নাম জড়িয়েছে। শুধু তাই নয়, স্টেজের উপর কুস্তিগিরকে থাপ্পড়ও মেরেছিলেন বর্তমানের বিজেপি সাংসদ তথা ফেডারেশনের সভাপতি ব্রিজভূষণ। যাঁর বিরুদ্ধে এবার মহিলা কুস্তিগিরদের যৌন হেনস্থার অভিযোগ তুলেছেন ভিনেশ ফোগাট।

জাতীয় কুস্তি ফেডারেশনের সভাপতি। অথচ সেই সভাপতি ব্রিজভূষণ শরণ সিংয়ের বিরুদ্ধে মহিলা কুস্তিগিরদের যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে। ফেডারেশনের অব্যবস্থা তৈরিরও অভিযোগ তুলেছেন অলিম্পিক্স, কমনওয়েলথ গেমসের পদকজয়ীরা। 

কিন্তু কে এই ব্রিজভূষণ? ইতিহাস বলছে, বরাবরই ‘বাহুবলী’ হিসেবে পরিচিত জাতীয় কুস্তি ফেডারেশনের সভাপতি ব্রিজভূষণ। অতীতে ডাকাতি, দাঙ্গার মতো বিষয়ে মামলায় নাম জড়িয়েছে। শুধু তাই নয়, স্টেজের উপর কুস্তিগিরকে থাপ্পড়ও মেরেছিলেন বর্তমানের বিজেপি সাংসদ তথা ফেডারেশনের সভাপতি ব্রিজভূষণ। যাঁর বিরুদ্ধে এবার মহিলা কুস্তিগিরদের যৌন হেনস্থার অভিযোগ তুলেছেন ভিনেশ ফোগাট।

কুস্তি ফেডারেশনের সভাপতি ব্রিজভূষণ শরণ সিংয়ের ইতিবৃত্ত

১) আদতে উত্তরপ্রদেশে গোন্ডা জেলার বাসিন্দা হলেন ব্রিজভূষণ। প্রাথমিকভাবে নিজেও কুস্তিগির ছিলেন। 

২) আটের দশকে ছাত্র রাজনীতিতে যোগ দিয়েছিলেন। অযোধ্যায় রাম মন্দির আন্দোলনের সময় নিজের 'হিন্দুত্ববাদী' ভাবমূর্তি তুলে ধরেছিলেন। 'হিন্দুস্তান টাইমস' গ্রুপের 'লাইভ হিন্দুস্তান'-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, নয়ের দশকে ক্রমশ বাহুবলী হয়ে উঠেছিলেন ব্রিজভূষণ।

৩) তারইমধ্যে ১৯৯১ সালের লোকসভা নির্বাচনে লড়াই করেছিলেন ব্রিজভূষণ। ছয়বারের সাংসদ তিনি। গতবার কৈসরগঞ্জ লোকসভা আসন থেকে জেতেন বিজেপি নেতা। তাছাড়াও গোন্ডা এবং বলরামপুর আসন থেকেও জিতেছিলেন। পাঁচবার বিজেপির টিকিটে জিতেছেন ব্রিজভূষণ। একবার সমাজবাদী পার্টির (সপা) টিকিটে জিতেছিলেন। 

আরও পড়ুন: মেয়েদের যৌন শোষণ করে- কুস্তি সংস্থার সভাপতির বিরুদ্ধে ভিনেশ ফোগাটের বড় অভিযোগ

৪) 'লাইভ হিন্দুস্তান'-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, নয়ের দশকে দাউদ ইব্রাহিমের সহযোগী সুভাষ সিং ঠাকুর, ভাই ঠাকুর, পরেশ দেশাই এবং শ্যাম কিশোরদের ছাউনি দেওয়ার অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে টাডা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। পরে সেই অভিযোগ থেকে মুক্তি পেয়েছিলেন।

৫) 'লাইভ হিন্দুস্তান'-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের জন্য যে হলফনামা পেশ করেছিলেন, তাতে জানিয়েছিলেন যে তাঁর বিরুদ্ধে অযোধ্যা এবং গোন্ডায় চারটি মামলা ছিল। ডাকাতি, হত্যার চেষ্টা, দাঙ্গা-সহ অন্যান্য অভিযোগে মামলা রুজু হয়েছিল।

৬) ব্রিজভূষণের পরিবারের সদস্যরাও রাজনীতিতে বড়-বড় পদে আছেন। গোন্ডা জেলা পঞ্চায়েতের প্রধান হলেন স্ত্রী দেবী সিং। গোন্ডা সদরের বিধায়ক হলেন ছেলে প্রতীক ভূষণ সিং।

আরও পড়ুন: Centre seeks answer from Wrestling Fed: কুস্তিগিরদের যৌন হেনস্থার অভিযোগ, ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ফেডারেশনের জবাব তলব সরকারের

৭) বরাবরই বিতর্কের মধ্যে থেকেছেন ব্রিজভূষণ। 'লাইভ হিন্দুস্তান'-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, রাঁচিতে একটি প্রতিযোগিতার সময় স্টেজেই এক কুস্তিগিরকে থাপ্পড় মেরে দিয়েছিলেন। ওই কুস্তিগির উত্তরপ্রদেশের ছিলেন। কিন্তু বয়স বেশি হওয়ায় তাঁকে অংশগ্রহণ করতে দেওয়া হয়নি। তবে হাল ছাড়েননি কুস্তিগির। ব্রিজভূষণের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। তারপরই মেজাজ হারিয়ে ওই কুস্তিগিরকে থাপ্পড় মেরেছিলেন ব্রিজভূষণ।

যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার ব্রিজভূষণের

দিল্লির যন্তর-মন্তরে কুস্তিগিরদের ধরনা ও বিস্ফোরক অভিযোগের মধ্যেই কুস্তি ফেডারেশনের জবাব তলব করেছে কেন্দ্রীয় ক্রীড়া মন্ত্রক। যদিও ব্রিজভূষণের দাবি, ভিনেশের যৌন হেনস্থার অভিযোগ প্রমাণিত হলে গলায় দড়ি দেবেন।

(এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup)

বন্ধ করুন