হবে না ইউরো কাপ  (AP)
হবে না ইউরো কাপ (AP)

Coronavirus crisis: ২০২০-তে হচ্ছে না ইউরো কাপ

ইউরোপীয়ান ফুটবলের ফ্ল্যাগশিপ টুর্নামেন্ট ইউরো কাপ পিছিয়ে গেল এক বছরের জন্য।

গত কয়েক সপ্তাহে করোনা ভাইরাসের জেরে বিধ্বস্ত ইউরোপের ক্লাব ফুটবল। এবার করোনা আতঙ্ক থাবা বসাল আন্তর্জাতিক ফুটবলের আসরেও। ইউরোপীয়ান ফুটবলের ফ্ল্যাগশিপ টুর্নামেন্ট ইউরো কাপ পিছিয়ে গেল এক বছরের জন্য।

উয়েফার তরফে এখনই সরকারিভাবে কিছু জানানো না হলেও নরওয়েন ও সুইডিশ ফুটবল সংস্থা ইঙ্গিত দিয়েছে ইউরো স্থগিত হয়ে যাওয়ার। মঙ্গলবার ইউরোপীয়ান ফুটবল সংস্থা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জরুরি বৈঠকে মিলিত হয় অনুমোদিত ৫৫টি জাতীয় সংস্থা, ক্লাব, লিগ ও ফুটবলারদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে। বৈঠক চলাকালীনই সুইডিশ ফুটবল ফেডারেশনের চেয়ারম্যান কার্ল-এরিক নিলসন সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়ে দেন টুর্নামেন্ট পিছিয়ে দেওয়ার খবর। সংক্ষিপ্ত বার্তায় রয়টার্সকে কার্ল লেখেন, '১১/৬-১১/৭/২০২১ পর্যন্ত স্থগিত। বৈঠকের পর কথা হবে।'

পরে নরওয়েন ফুটবল সংস্থাও তাদের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলে পোস্ট করে এক বছরের জন্য ইউরো মুলতুবি হয়ে যাওয়ার খবর। বৈঠকের সিদ্ধান্ত সিলমোহরের জন্য পাঠানো হবে উয়েফার এক্সিকিউটিভ কমিটির কাছে। তার পরেই ইউরোপীয়ান ফুটবল সংস্থার তরফে সিদ্ধান্তের কথা সরকারিভাবে ঘোষণা করা হবে।

এই প্রথমবার ইউরোর মূলপর্বের খেলা পিছিয়ে যেতে চলেছে। এর আগে কখনও এমন পরিস্থিতির মুখে পড়তে হয়নি উয়েফাকে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ক্রীড়াবিশ্ব একজোট হয়ে লড়াই করার যে সংকল্প নিয়েছে, তার জেরেই অনিবার্য হয়ে পড়ে ইউরোর সময় বদল। যদিও এর ফলে বিপুল ক্ষতির মুখে পড়তে হতে পারে ব্রডকাস্টার থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্ট সব সংস্থাকেই।

সারা বিশ্বে ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় দু'লক্ষ মানুষ। প্রাণহানি হয়েছে সাত হাজারেরও বেশি। ইউরোপের প্রথম সারির পাঁচটি ফুটবল লিগ এই মুহূর্তে বন্ধ রয়েছে। আপাতত স্থগিত রয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, ইউরোপা লিগ ও ওয়ার্ল্ড কাপ কোয়ালিফায়ারও।

বন্ধ করুন