বাড়ি > ময়দান > CPL 2020: নাইট রাইডার্সের হয়ে বল হাতে ভেল্কি ৪৯-এ পা দিতে চলা প্রবীণ তাম্বের
উইকেট নেওয়ার পর তাম্বেকে ঘিরে সতীর্থরা। ছবি- টুইটার।
উইকেট নেওয়ার পর তাম্বেকে ঘিরে সতীর্থরা। ছবি- টুইটার।

CPL 2020: নাইট রাইডার্সের হয়ে বল হাতে ভেল্কি ৪৯-এ পা দিতে চলা প্রবীণ তাম্বের

  • চলতি ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়র লিগে টানা আট ম্যাচে জয় TKR-এর।

বুড়ো হাড়ে ভেল্কি বললে মোটেও ভুল বলা হয় না। যদিও ক্রিকেট বিশ্ব প্রবীণ তাম্বেকে ৪৮ বছরের তরুণ ক্রিকেটার বলে অভিহিত করছে।

পরেই মাসেই ৪৯ বছর বয়স হয়ে যাবে ভারতীয় স্পিনারের। এখনও প্রথম সারির টি-২০ ক্রিকেটে বল হাতে কতটা কার্যকরী তিনি, তার প্রমাণ দিলেন আরও একবার।

চলতি ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়র লিগে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের টানা আট নম্বর জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেন তাম্বে। ৪ ওভার বল করে একটি মেডেন-সহ মাত্র ১২ রানের বিনিময়ে ১টি উইকেট নেন ভারতীয় স্পিনার। 

সিপিএলে এটি তাঁর দ্বিতীয় ম্যাচে। এর আগের ম্যাচে মাত্র ১ ওভার বল করার সুযোগ পেয়েছিলেন তাম্বে। ১৫ রান খরচ করলেও সিপিএলে নিজের অভিষেক ম্যাচের প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে নেন তিনি। এবার নিজের দ্বিতীয় ম্যাচে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের কার্যত খাঁচাবন্দি করে রাখেন তাম্বে।

যদিও সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের বিরুদ্ধে নাইট রাইডার্সকে জয়ের মঞ্চে বসিয়ে দেন লেন্ডল সিমন্স। তিনি অল্পের জন্য শতরান হাতছাড়া করেন।

প্রথম ব্যাট করে নাইট রাইডার্স ২০ ওভারে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ১৭৪ রান তোলে। সিমন্স ৭টি চার ও ৬টি ছক্কার সাহায্যে ৬৩ বলে ৯৬ রান করেন। ড্যারেন ব্র্যাভো করেন ৩৬ বলে ৩৬ রান।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে সেন্ট কিটস ২০ ওভারে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ১১৫ রানে আটকে যায়। নাইট রাইডার্স ৫৯ রানের ব্যবধানে ম্যাচ জিতে যায়। ম্যাচের সেরা হন সিমন্স।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:- নাইট রাইডার্স: ১৭৪/৪ (২০ ওভার), সেন্ট কিটস: ১১৫/৭ (২০ ওভার), (নাইট রাইডার্স ৫৯ রানে জয়ী)।

বন্ধ করুন