বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > ১৮ বলে অর্ধশতরান করে কেএল রাহুলের নজির স্পর্শ করলেন শোয়েব মালিক
দুরন্ত ছন্দে শোয়েব মালিক। ছবি: পিটিআই
দুরন্ত ছন্দে শোয়েব মালিক। ছবি: পিটিআই

১৮ বলে অর্ধশতরান করে কেএল রাহুলের নজির স্পর্শ করলেন শোয়েব মালিক

  • ইনিংসের শেষ ওভারে ক্রিস গ্রেভসকে তিনটে ছয় এবং একটি চার মারেন শোয়েব। সেই সঙ্গেই তিনি ১৮ বলে অপরাজিত ৫৪ রান করে ফেলেন। আর শোয়েব মালিকের এই রানের হাত ধরে পাকিস্তান প্রথমে ব্যাট করে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮৯ করে ফেলে।

বয়সটা যে শুধুই সংখ্যা, সেটা চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রমাণ করে চলেছেন শোয়েব মালিক। ৩৯ বছর বয়সেও তিনি ২২ গজে ফুল ফোটাচ্ছেন। রবিবার তো স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে বিধ্বংসী মেজাজে পাওয়া গেল শোয়েব মালিককে। ১৮ বলে অর্ধশতরান করে তিনি কেএল রাহুলের নজির স্পর্শ করে ফেললেন।

রাহুলও চলতি বিশ্বকাপে স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধেই ১৮ বলে অর্ধশতরান পূরণ করেছিলেন। এই বিশ্বকাপে এটাই ছিল দ্রুততম অর্ধশতরানের রেকর্ড। আর টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দ্বিতীয় দ্রুততম অর্ধশতরানের রেকর্ড। সেই নজিরই এ দিন স্পর্শ করলেন শোয়েব মালিক। সেই সঙ্গে পাকিস্তান ক্রিকেটারদের মধ্যে আবার টি-টোয়েন্টিতে দ্রুততম অর্ধশতরানের রেকর্ডের দখল নিলেন শোয়েব মালিকই।

ইনিংসের শেষ ওভারে ক্রিস গ্রেভসকে তিনটে ছয় এবং একটি চার মারেন শোয়েব। সেই সঙ্গেই তিনি ১৮ বলে অপরাজিত ৫৪ রান করে ফেলেন। আর শোয়েব মালিকের এই রানের হাত ধরে পাকিস্তান প্রথমে ব্যাট করে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮৯ করে ফেলে। শেষ ওভারে সব মিলিয়ে গ্রেভস দেন মোট ২৬ রান।

তবে দ্রুততম অর্ধশতরানের মালিক এখনও পর্যন্ত যুবরাজ সিং। ২০০৭ সালে প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ১২ বলে অর্ধশতরান করেছিলেন ভারতের যুবরাজ সিং। গৌতম গম্ভীর আবার ২০০৯ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মঞ্চে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ১৯ বলে অর্ধশতরান করেছিলেন। এটাই ছিল এত দিন দ্বিতীয় দ্রুততম অর্ধশতরানের নজির। সেই রেকর্ডই চলতি বিশ্বকাপে ভেঙে দিলেন প্রথমে কেএল রাহুল, এবং রবিবার শোয়েব মালিক। এ ছাড়াও ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যুবরাজ সিং অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ২০ বলে অর্ধশতরান করেছিলেন। ২০০৯ সালে সেই যুবরাজই আবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ফের ২০ বলে অর্ধশতরান করার নজির গড়েন।

বন্ধ করুন