বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2022 > IPL 2022: রজত-কার্তিকদের একের পর এক ক্যাচ মিস LSG-র,গোতির থেকে বকা খাওয়া নিশ্চিত

IPL 2022: রজত-কার্তিকদের একের পর এক ক্যাচ মিস LSG-র,গোতির থেকে বকা খাওয়া নিশ্চিত

রজত পতিদার এবং দীনেশ কার্তিকের ক্যাচ ফেলে নিজেদের পায়ে কুড়ু মারল লখনউ। ছবি: পিটিআই

নিজের পায়ে কুড়ুল মারা বোধহয় একেই বলে। রজত পতিদারের ক্যাচ ২ বার ফেলে লখনউ। কার্তিকের ক্যাচ ফেলে ১ বার। যার খেসারত লখনউকে দিতে হল, বড় রানের বোঝা মাথায় নিয়ে। ৫৪ বলে ১১২ রান করে অপরাজিত থাকেন পতিদার। আর কার্তিক ২৩ বলে অপরাজিত ৩৭ রান করেন। আর আরসিবি করে ফেলে নির্দিষ্ট ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২০৭ রান।

আইপিএলের এলিমেনটরের ম্যাচে বিধ্বংসী মেজাজে ছিলেন রজত পতিদার। তার উপর আবার তাঁর সহজ ক্যাচও ফেলে দেন দীপক হুডা। তার আগে আবার দীনেশ কার্তিকের লোফা ক্যাচ ফেলে দিয়েছিলেন লখনউ সুপার জায়ান্টস অধিনায়ক কেএল রাহুল। এর পর সেঞ্চুরির ঠিক আগে ফের ফের পতিদারের ক্যাচ মিস হয়। এ বার তাঁর ক্যাচ ধরতে পারেননি মনন ভোরা।

একের পর ক্যাচ ফেলার সময়ে দলের মেন্টর গৌতম গম্ভীর মাথা চাপড়ে ওঠেন। এত ক্যাচ মিস করার পর গোতিম কাছে যে বিশাল বকুনি খেতে হবে রাহুলদের, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

বুধবার টসে হেরে ব্যাট করতে নামে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। ফ্যাফ ডু'প্লেসি গোল্ডেন ডাক করে সাজঘরে ফেরেন। কোহলিও ২৪ বলে ২৫ করে আউ হন। তবে এ দিন সব ফোকাস কেড়ে নেন রজত পতিদার। যাঁকে নিলামে কেউ কেনেইনি। আরসিবি-র লিগের দ্বিতীয় ম্যাচের পর চোটের জন্য গোটা আইপিএল মরশুম থেকে ছিটকে গিয়েছিলেন লুবনিথ সিসোদিয়া। তাঁর জায়গায় দলে নেওয়া হয়েছিল রজত পতিদারকে। সেই পতিদারই তাণ্ডব চালালেন এলিমেনটরের ম্যাচে ইডেনে।

ম্যাচের লাইভ আপডেট জানতে ক্লিক করুন এখানে: https://bangla.hindustantimes.com/sports/ipl/ipl-2022-eliminator-live-score-and-update-of-lsg-vs-rcb-playoff-match-at-eden-gardens-in-kolkata-31653483745027.html

প্রথম বার তাঁর ক্যাচ পড়ে ১৫.৩ ওভারে। রবি বিষ্ণোইয়ের বলে রজতের ক্যাচ ছাড়েন দীপক হুডা। একেবারে সহজ ক্যাচ ছিল। উল্টে ক্যাচ মিস করায় সেটি চার হয়ে যায়। তার আগে আগের বলেই পতিদার একটি ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন। যখন পতিদারের ক্যাচ পড়ে, তখন তাঁর সংগ্রহ ছিল ৭২ রান। এর পর ফের ১৭.৩ ওভারে মহসিন খানের বলে পতিদারের ক্যাচ ধরতে পারেননি ভোরা। সেই বলে ২ রান হয়। আর পরের বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে সেঞ্চুরি পূরণ করেন পতিদার। দু'বার জীবনদান পেয়ে শেষ পর্যন্ত ৫৪ বলে ১১২ রান করে অপরাজিত থাকেন পতিদার।

আবার ১৪.৫ ওভারে মহসিনের বলেই কার্তিকের ক্যাচ ছাড়েন লোকেশ রাহুল। তখন দীনেশ কার্তিকের রান ছিল ২। আর কার্তিক তাঁর ইনিংস শেষ করে ২৩ বলে অপরাজিত ৩৭ রানে। আর ব্যাঙ্গালোর করে ফেলে নির্দিষ্ট ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২০৭ রান।

বন্ধ করুন