বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2022 > জাড্ডুর ছিটকে যাওয়া বা রাইডুর টুইট-পর্দার পিছনে CSK-র গল্প জটিল, দাবি মঞ্জরেকরের
চেন্নাইয়ের ব্যর্থতার পাশাপাশি রাইডুর টুইট এবং জাদেজার ছিটকে যাওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সঞ্জয় মঞ্জরেকর।

জাড্ডুর ছিটকে যাওয়া বা রাইডুর টুইট-পর্দার পিছনে CSK-র গল্প জটিল, দাবি মঞ্জরেকরের

  • সঞ্জয় মঞ্জরেকর মনে করেন, আইপিএলে চেন্নাইয়ের এবং সিনিয়র প্লেয়ার রবীন্দ্র জাদেজার দুম করে ছিটকে যাওয়া বা অম্বাতি রাইডুর অবসর নিয়ে টুইট এবং তা পরে ডিলিট করে দেওয়া- সব মিলিয়ে সিএসকে-তে সবটা স্বাভাবিক নেই।

প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার এবং ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মঞ্জরেকর দাবি করেছেন, চেন্নাই সুপার কিংসের পর্দার আড়ালে জটিল কিছু ঘটে চলেছে। তাদের গল্পটা মোটেও সরল নয়। তিনি মনে করেন, আইপিএলে চেন্নাইয়ের এবং সিনিয়র প্লেয়ার রবীন্দ্র জাদেজার দুম করে ছিটকে যাওয়া বা অম্বাতি রাইডুর অবসর নিয়ে টুইট এবং তা পরে ডিলিট করে দেওয়া- সব মিলিয়ে সিএসকে-তে সবটা স্বাভাবিক নেই।

জাদেজা আইপিএল-২০২২-এর আগে দলের নেতা হিসাবে এমএস ধোনির স্থলাভিষিক্ত হন। কিন্তু তাঁর নেতৃত্বে দলের হতাশাজনক পারফরম্যান্সের পরে তিনি পদত্যাগ করেন। এই ঘটনার দুই ম্যাচ পরে, ফিল্ডিং করার সময়ে তিনি পাঁজরে চোট পান। তবে ফিজিও-র থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নেওয়ার পর খেলা চালিয়ে যান জাড্ডু।

তবে তিনি পরের ম্যাচটি মিস করেন এবং তার পরে জানানো হয়, বাকি মরশুম থেকে ছিটকে গিয়েছেন জাদেজা। ফ্র্যাঞ্চাইজির তরফে দাবি করা হয়ে, জাদেজার চোট নিয়ে তারা ঝুঁকি নিতে চান না। সিএসকে-র এই দাবি নিয়েও কিন্তু বিতর্ক রয়েছে। দুম করে জাদেজাকে সরিয়ে ফেলার বিষয়টি হজম করতে পারছেন না অনেক ক্রিকেট ভক্তই।

সম্প্রতি আবার ফর্মে থাকা রাইডু টুইট করে নিজের অবসরের ঘোষণা করে বসেন। যদিও পরে তিনি টুইটটি মুছে ফেলেন। তবে এই নিয়েও শুরু হয়ে যায় তর্ক-বিতর্ক। সুপার কিংসের সিইও কাশী বিশ্বনাথন এটিকে একটি ‘ভুল’ করে বলে ব্যাখ্যা দেন। তবে তার আগেই এই টুইট নিয়ে আলোড়ন পড়ে যায়।

আরও পড়ুন: ‘জাদেজা আর CSK-এর সম্পর্ক বোধহয় শেষ’, দাবি প্রাক্তন ব্রিটিশ অধিনায়কের

আরও পড়ুন: রাইডুর অবসরের টুইট করা আর ডিলিট নিয়ে নেটপাড়ায় ঝড়, মুখ খুলতে বাধ্য হলেন CSK CEO

এই বিষয়গুলি দেখেই ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার সঞ্জয় মঞ্জরেকরের মনে করছেন, চেন্নাইয়ের পর্দার পিছনে কিছু ঘটে চলেছে। বাইরে না এলেও, সেই বিষয়গুলি বেশ জটিল। ইএসপিএনক্রিকইনফো-তে তিনি বলেছেন, ‘যখন একটি দল তিন মরশুমে দু'বার প্লে-অফের জন্য যোগ্যতা অর্জন করতে পারে না, তখন কিছু তো ঘটছেই। বাইরে থেকে কিছু বোঝা যাচ্ছে না ঠিকই। তবে পর্দার আড়ালে কিছু জটিল বিষয় তো রয়েছেই। জাদেজা বাকি মরশুমের জন্য ছিটকে গেলেন। যদিও বলা হচ্ছে, বড় চোট রয়েছে ওর। তবে কিছু না কিছু তো ঘটছেই।’

চার বারের চ্যাম্পিয়নদের ব্যর্থতা এবং প্লে-অফে উঠতে না পারার কারণ ব্যখ্যা করতে গিয়ে মঞ্জরেকর বলেছেন, ওপেনার রুতুরাজ গায়কওয়াড়ের ফর্ম নেই, পেসার দীপক চাহারের অনুপস্থিতি এবং নতুন মরশুম শুরুর কয়েক দিন আগে ধোনির অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেওয়াটা ছিল বড় আঘাত। সঞ্জয় মঞ্জরেকরও বিশ্বাস করেন যে, দলে ক্রমাগত পরিবর্তন তাদের আরও ক্ষতিই করেছে।

তিনি বলেছেনও, ‘টুর্নামেন্টের শুরুতেই কয়েকটি বড় ধাক্কা খেয়েছিল চেন্নাই- ঋতুরাজ গায়কোয়াড় ধারাবাহিক ছন্দে ছিলেন না, তারা দীপক চাহারের মতো বোলারকে মিস করেছেন, তাঁর মতো বোলার খুঁজে পায়নি চেন্নাই। এবং তার পরে তারা ধোনির নেতৃত্বও হারায় সিএসকে। আমি এর জন্য জাদেজাকে দোষ দিচ্ছি না, কারণ ওকে দুম করে নেতৃত্ব তুলে দেওয়া হয়েছিল। ধোনি ধারাবাহিক ভাবে নেতৃত্ব দিলে হয়তো অন্য রকম হতে পারত। সিএসকে-এর আরেকটি বিশেষত্ব ছিল, তারা তাদের দল বদলাতে অভ্যস্ত ছিল না। এই বছর সেটা ধাক্কা খেয়েছে।’

বন্ধ করুন