বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2021 > চোখের জলে ভাসলেন পৃথ্বী, হতাশায় ডুবলেন পন্ত, IPL থেকে ছিটকে ভেঙে পড়ল DC শিবির
কলকাতার কাছে ম্যাচ হেরে হতাশায় ডুবে যায় দিল্লি।
কলকাতার কাছে ম্যাচ হেরে হতাশায় ডুবে যায় দিল্লি।

চোখের জলে ভাসলেন পৃথ্বী, হতাশায় ডুবলেন পন্ত, IPL থেকে ছিটকে ভেঙে পড়ল DC শিবির

  • একদিকে যখন কলকাতা নাইট রাইডার্স শিবির উচ্ছ্বাসে আত্মহারা ছিল, তখন দিল্লি শিবিরে যন্ত্রণার টুকরো ছবিগুলো বড় বেশি করুণ ছিল। আইপিএলের শুরু থেকে লড়াই করে জিততে না পারার যন্ত্রণাটা স্বাভাবিক ভাবেই একটু বেশিই ছিল।

ম্যাচের শেষে মাঠের মধ্যেই শুয়ে পড়েছিলেন পৃথ্বী শ'। হারের যন্ত্রণাটা এত বেশি ছিল যে চোখের জল তিনি ধরে রাখতে পারেননি। একই অবস্থা হয়েছিল দিল্লি ক্যাপিটালসের অধিনায়ক ঋষভ পন্তের। তিনি হতাশায় একেবারে ভেঙে পড়েছিলেন। তাঁকে সান্ত্বনা দেন দলের কোচ রিকি পন্টিং। শুধু পৃথ্বী বা পন্ত নন, পুরো দিল্লি শিবিরই বুধবার আইপিএল থেকে ছিটকে গিয়ে একেবারে ভেঙে পড়ে।

একদিকে যখন কলকাতা নাইট রাইডার্স শিবির উচ্ছ্বাসে আত্মহারা ছিল, তখন দিল্লি শিবিরে যন্ত্রণার টুকরো ছবিগুলো বড় বেশি করুণ ছিল। আইপিএলের শুরু থেকে লড়াই করে জিততে না পারার যন্ত্রণাটা স্বাভাবিক ভাবেই একটু বেশিই ছিল। যে টিমটা লড়াই করে লিগ টেবলের শীর্ষে নিজেদের জায়গা পাকা করে নিয়েছিল, যারা অন্য টিমকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে হারাচ্ছিল, তারাই প্লে-অফ থেকে ছিটকে গেল।

ম্যাচের শেষে মাঠের মধ্যেই শুয়ে পড়েছিলেন পৃথ্বী শ'। হারের যন্ত্রণাটা এত বেশি ছিল যে চোখের জল তিনি ধরে রাখতে পারেননি। একই অবস্থা হয়েছিল দিল্লি ক্যাপিটালসের অধিনায়ক ঋষভ পন্তের। তিনি হতাশায় একেবারে ভেঙে পড়েছিলেন। তাঁকে সান্ত্বনা দেন দলের কোচ রিকি পন্টিং। শুধু পৃথ্বী বা পন্ত নন, পুরো দিল্লি শিবিরই বুধবার আইপিএল থেকে ছিটকে গিয়ে একেবারে ভেঙে পড়ে।

একদিকে যখন কলকাতা নাইট রাইডার্স শিবির উচ্ছ্বাসে আত্মহারা ছিল, তখন দিল্লি শিবিরে যন্ত্রণার টুকরো ছবিগুলো বড় বেশি করুণ ছিল। আইপিএলের শুরু থেকে লড়াই করে জিততে না পারার যন্ত্রণাটা স্বাভাবিক ভাবেই একটু বেশিই ছিল। যে টিমটা লড়াই করে লিগ টেবলের শীর্ষে নিজেদের জায়গা পাকা করে নিয়েছিল, যারা অন্য টিমকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে হারাচ্ছিল, তারাই প্লে-অফ থেকে ছিটকে গেল।|#+|

প্রথম কোয়ালিফায়ারে চেন্নাই সুপার কিংসের কাছে হেরে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে কলকাতা নাইট রাইডার্সের মুখোমুখি হয় দিল্লি। কিন্তু সেই ম্যাচেও ৩ উইকেটে হেরে যায় তারা। বুধবার টসে জিতে দিল্লিকে ব্যাট করতে পাঠিয়েছিল কলকাতার অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যান। প্রথমে ব্যাট করে ৫ উইকেটে ১৩৫ রান করে দিল্লি। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১২.২ ওভারে ৯৬ রানে ১ উইকেট থেকে ১৯.৪ ওভারে ১৩০ রানে কলকাতার ৭ উইকেট ফেলে দেয় দিল্লি। তার মধ্যে আবার ১৮-২০ ওভারের মধ্যে পড়ে ৪ উইকেট।

ম্যাচ অনেকটাই নিজেদের দিকে ঘুরিয়ে দিয়েছিল দিল্লির বোলাররা। শেষ ২ বলে ৬ রান করতে হত কলকাতাকে। আগের দু'টি বলে দুই উইকেট হারিয়েছিল নাইটরা। সেখান থেকে চাপের মধ্যেও ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে ১৯.৫ ওভারে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে ছক্কা হাঁকিয়ে কলকাতাকে জিতিয়ে দেন রাহুল ত্রিপাঠি। তিনি হয়ে যান বাজিগর। সেই সঙ্গে আইপিএল থেকে ছিটকে যায় দিল্লি ক্যাপিটালস।

বন্ধ করুন