বাংলা নিউজ > ময়দান > সূর্যকুমারের অবস্থা মণীশ পান্ডে, সঞ্জু স্যামসনের মতো হবে না তো? আশঙ্কা প্রকাশ গম্ভীরের
গৌতম গম্ভীর ও সূর্যকুমার যাদব। ছবি- টুইটার।
গৌতম গম্ভীর ও সূর্যকুমার যাদব। ছবি- টুইটার।

সূর্যকুমারের অবস্থা মণীশ পান্ডে, সঞ্জু স্যামসনের মতো হবে না তো? আশঙ্কা প্রকাশ গম্ভীরের

  • পর্যাপ্ত সুযোগ না দিয়েই নবাগত ক্রিকেটারকে কীভাবে বসিয়ে দেওয়া যায়, প্রশ্ন তুললেন প্রাক্তন তারকা।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চলতি টি-২০ সিরিজে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টের বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়ে শুরু থেকেই খুশি নন বিশেষজ্ঞরা। বিশেষ করে কোহলিদের প্রথম একাদশ নির্বাচন ও ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে ইতিমধ্যেই।

রোহিত শর্মাকে প্রথম দু'ম্যাচে বিশ্রাম দেওয়া, শিখর ধাওয়ানকে এক ম্যাচ খেলিয়েই বাদ দেওয়া, শ্রেয়স আইয়ার অতীতে চার নম্বরে সফল হওয়া সত্ত্বেও তাকে পাঁচে ব্যাট করতে পাঠানো, ইশান কিষাণ ওপেন করতে নেমে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ হওয়া সত্ত্বেও তাঁকে পরের ম্যাচেই তিন নম্বরে ব্যাট করতে পাঠানো, প্রভৃতি একাধিক সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত হতে পারেননি বীরেন্দ্র সেহওয়াগ, সঞ্জয় মঞ্জরেকরের মতো প্রাক্তন তারকারা।

এবার টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্ষুব্ধ শোনাল গৌতম গম্ভীরকে। আসলে সূর্যকুমার যাদব ব্যাট করার সুযোগ না পাওয়া সত্ত্বেও তাঁকে এক ম্যাচ খেলিয়েই রিজার্ভ বেঞ্চে বসিয়ে দেওয়ার তীব্র সমালোচনা করলেন টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন তারকা।

সিরিজের দ্বিতীয় টি-২০ ম্যাচে ইশান কিষাণের সঙ্গে জাতীয় দলে অভিষেক হয় সূর্যকুমারেরও। ইশান হাফ-সেঞ্চুরি করলেও সূর্যকুমার ব্যাট করার সুযোগ পাননি। তার আগেই ভারত জয় তুলে নেয়। তৃতীয় ম্যাচে রোহিত শর্মা দলে ফিরলে বাদ দেওয়া হয় সূর্যকুমারকে। রোহিত ওপেন করেন এবং ইশান কিষাণ তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামেন।

সূর্যকে বসিয়ে দেওয়া নিয়ে গম্ভীর জানান যে, টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্ত নিশ্চিতভাবেই কষ্ট দেবে মু্ম্বই তারকাকে। গম্ভীর বলেন, ‘আমি যদি সূর্যকুমারের জায়গায় থাকতাম, তবে নিশ্চিতভাবেই কষ্ট পেতাম। আমার (সূর্যকুমারের) বয়স এখন ২১ নয়। আমি ৩০ ছুঁয়েছি। যখনই আপনি ৩০ ছুঁয়ে ফেলেন, অনিশ্চয়তা গ্রাস করতে থাকে। দেখুন মণীশ পান্ডের সঙ্গে কী হয়েছে। কেউ এখন ওর কথা মুখেও আনে না। সঞ্জু স্যামসনের দিকে তাকান। কেউ জিজ্ঞাসাও করে না যে, ও কোথায় রয়েছে?’

পরক্ষণে গম্ভীর ইশানের প্রসঙ্গও উত্থাপন করেন। তিনি বলেন, ‘ইশানের কথাই ভাবুন না। হাফ-সেঞ্চুরি করল, তার পরেই তিন নম্বরে নামিয়ে দেওয়া হল। সূর্যকুমারের আন্তর্জাতিক কেরিয়ার নিয়ে কী বুঝতে পারলেন? আমার মনে হয় যে, কাউকে অভিষেকের সুযোগ দিলে তাঁকে যাচাই করার জন্য অন্তত ৩-৪টি ম্যাচ খেলানো উচিত।’

বন্ধ করুন