অনুশীলনে বিরাট কোহলিরা। ছবি- এপি।
অনুশীলনে বিরাট কোহলিরা। ছবি- এপি।

দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ খেলে ছোট দলগুলির ক্ষতির বোঝা কমাবে টিম ইন্ডিয়া

  • ভারতের বিরুদ্ধে ম্যাচ খেললে সব থেকে বেশি আয় হয় অন্যান্য ক্রিকেট বোর্ডগুলির।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দীর্ঘদিন ধরেই প্রচলিত ও পরীক্ষিত ফর্মুলা হল, বাড়তি উপার্জন করতে চাইলে ভারতের সঙ্গে বেশি করে দ্বি-পাক্ষিক ম্যাচ খেলো। করোনা মাহামারি পরবর্তী আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সেই ছবিটা আরও প্রতিষ্ঠিত হতে চলেছে সন্দেহ নেই। বরং বলা ভালো, আইসিসি-সহ ক্রিকেটবিশ্বের বাকি দেশগুলি আরও বেশি করে বিসিসিআইয়ের উপর নির্ভরশীল হতে চলেছে।

বিষয়টা ক্রিকেটবিশ্বে নিজেদের অধিপত্য বজায় রাখার চাবাকাঠি হিসেবে ধরা দিলেও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকে আপাতত দায়বদ্ধ দেখাচ্ছে অন্যান্য ক্রিকেট খেলিয়ে দেশগুলিকে বিপুল আর্থিক ক্ষতির হাত থেকে টেনে তোলায়। আইসিসির বৈঠকে বিসিসিআই সচিব জয় শাহ সেই প্রতিশ্রুতিই দিয়েছেন বলে খবর।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বোর্ড কর্তা জানিয়েছেন, আইসিসির ফিউটার ট্যুর প্রোগ্রাম পুনর্গঠনের সময় বিসিসিআই বাকি দেশগুলির স্বার্থের কথা গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করবে। সদস্য দেশগুলিকে এমনটাই প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বিসিসিআই। যার অর্থ, বাকি বোর্ডগুলির ক্ষতি সামাল দিতে অদূর ভবিষ্যতে ভারতকে আরও বেশি করে দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ খেলতে দেখা যেতে পারে। যদিও এক্ষেত্রে ছোট দলগুলির কথা আগে ভাববে ভারতীয় বোর্ড। আপাতত বিসিসিআই হিসাব করে দেখছে করোনা মহামারির জন্য কোন বোর্ডের ক্ষতির পরিমাণ কত।

যদিও টিম ইন্ডিয়া প্রাধান্য দেবে তাদের পূর্ব নির্ধারিত দ্বি-পাক্ষিক সিরিজগুলিকে। আগামী এক বছরে ভারতের চারটি বিদেশ সফরে যাওয়ার কথা। শ্রীলঙ্কায় ৬টি সীমিত ওভারের ম্যাচ খেলার কথা কোহলিদের। অস্ট্রেলিয়ায় ৪টি টেস্ট। জিম্বাবোয়ে ও দক্ষিণ আফ্রিকায় ৩টি করে সীমিত ওভারের ম্যাচের সূচি রয়েছে টিম ইন্ডিয়ার।

এটা নিশ্চিত যে, মাঝে অবসর খুঁজে ভারত সংক্ষিপ্ত ট্যুরে বিদেশে খেলতে যাবে না। বরং বিসিসিআই ঘরোয়া মরশুমে বাড়তি ম্যাচ আয়োজন করতে চাইবে। একমাত্র সেক্ষেত্রেই বাড়তি আয় করা সম্ভব। বিসিসিআই চাইছে ঘরের মাঠে বাড়তি ম্যাচ খেলে যে আয় হবে, তার একটা অংশ প্রতিপক্ষ দলগুলিকে দিয়ে তাদের আর্থিক ক্ষতির হাত থেকে টেনে তুলতে।

ছোট দলগুলি নিজেদের মাঠে ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজ খেললে বিজ্ঞাপণ ও মিডিয়া রাইটস থেকে তাদের আয় বেশি হয়। তবে ভারতের মাটিতে সিরিজ খেললে যে টাকা তারা বিসিসিআইয়ের কাছ থেকে পাবে, তা নিজেরা সিরিজ আয়োজন করেও তাদের পক্ষে উপার্জন করা সম্ভব হবে না।

বন্ধ করুন