রাজ্যপালের পরামর্শ নিয়ে বিতর্ক (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
রাজ্যপালের পরামর্শ নিয়ে বিতর্ক (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

গার্গেল করলে কি সারবে করোনা, রাজ্যপালের দাবির সত্যতা জেনে নিন

গুজব এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তবে তাঁর দেওয়া একটি পরামর্শের বৈজ্ঞানিক সত্যতা নিয়ে ইতিমধ্যে প্রশ্ন উঠে গিয়েছে।

গুজব এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। আর সেই তিনিই করোনাভাইরাস নিরাময়ের এমন তথ্য দিলেন যার বৈজ্ঞানিক সত্যতা নিয়ে ইতিমধ্যে প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। এমনকী সেই তথ্য সঠিক নয় বলে জানিয়েছে কেন্দ্রের প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো (পিআইবি)।

আরও পড়ুন : Coronavirus latest update in India: এসব ভুল ধারণা এড়িয়ে চলুন, মোকাবিলা করুন করোনার

ঘটনাটি ঠিক কী?

গত রবিবার দুটি টুইট করেন রাজ্যপাল। প্রথম টুইটবার্তায় তিনি বলেন, 'আতঙ্কিত হওয়ার পরিবর্তে করোনাভাইরাস মহামারী আটকানোর জন্য সবাইকে শৃঙ্খলা ও পরিণত প্রতিক্রিয়া দেখানোর আর্জি জানাচ্ছি। নির্দেশিকা অবশ্যই পালন করতে হবে। সোশ্যাল মিডিয়ায় দায়িত্বপূর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি (নেওয়া) কার্যকরী হবে ও তা গুজবকে নিয়ন্ত্রণ করবে।'

আরও পড়ুন :কীভাবে করোনার প্রকোপ থেকে রক্ষা পাবেন, দেখে নিন যাবতীয় তথ্য

এই পর্যন্ত ঠিক ছিল। কিন্তু রাজ্যপালের দ্বিতীয় টুইটেই তাল কাটে। পুরো হিন্দিতে লেখা সেই টুইটবার্তায় তিনি বলেন, 'দারুণ পরামর্শ। ফুসফুসে পৌঁছানোর আগে চারদিন গলায় থাকে করোনাভাইরাস। সেই সময় মানুষের গলা ব্যথা ও কাশি হয়। আপনি যদি প্রচুর পরিমাণে জল খান ও গরম জলে নুন বা ভিনিগার মিশিয়ে গার্গেল করেন, তাহলে ভাইরাস নির্মূল হয়ে যায়। জনস্বার্থে এই তথ্য সবার কাছে ছড়িয়ে দিন।'

আরও পড়ুন : করোনাভাইরাস থেকে শিশুকে কী ভাবে রক্ষা করবেন, জেনে রাখুন জরুরি টিপ্‌স

রাজ্যপালের সেই পরামর্শ-এর যে কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই, তা আগেই জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। অত্যন্ত এখনও পর্যন্ত সেই প্রমাণ মেলেনি বলে বক্তব্য তাঁদের। রাজ্যপালের টুইটের একদিন পর (গত ১৬ মার্চ বিকেল ৫টা ১৫ মিনিট) পিআইবিও সেই 'পরামর্শ' খণ্ডন করে দেয়।

আরও পড়ুন : করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে কী দিয়ে ও কীভাবে হাত ধুতে হবে? দেখে নিন

@PIBFactCheck টুইটার হ্যান্ডেল থেকে টুইট করে বলা হয়, 'নুন ও ভিনিগার মিশিয়ে গার্গেল করে করোনাভাইরাসের চিকিৎসা করা যায় না। এটা ভুয়ো খবর। যা সোশ্যাল মিডিয়া ও হোয়্যাটসঅ্যাপে ছড়িয়ে পড়ছে।' সেই টুইটে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রককেও ট্যাগ করা হয়।

আরও পড়ুন : করোনা নিয়ে নবান্নের আমলার কাণ্ডজ্ঞান নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ মমতার

আর এখানেই উঠছে প্রশ্ন। করোনা প্রকোপের মধ্যে একাধিক অসত্য ও অবৈজ্ঞানিক তথ্য ছড়িয়ে পড়েছে। তা নিয়ে আমজনতার মধ্যে ভুল ধারণা তৈরি হচ্ছে। যা এড়িয়ে যাওয়ার জন্য কেন্দ্র ও রাজ্যের তরফে ক্রমাগত প্রচার চালানো হচ্ছে। সেই পরিস্থিতিতে রাজ্যপালের 'পরামর্শ'-এর অবৈজ্ঞানিক টুইট নিয়ে একাধিক প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে রাজ্যের বিভিন্ন মহলে। তবে পিআইবির টুইট থেকে একটা বিষয় পরিষ্কার, রাজ্যপালের পরামর্শ মেনে চললে কোনও লাভ হবে না। অত্যন্ত করোনার থাবা থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে না।

বন্ধ করুন