কেন্দ্রীয় মন্ত্রক বা UGC-র তরফ থেকে বকেয়া পরীক্ষা আয়োজনের বিষয়ে কোনও সুস্পষ্ট নির্দেশ আসেনি, দাবি রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের।
কেন্দ্রীয় মন্ত্রক বা UGC-র তরফ থেকে বকেয়া পরীক্ষা আয়োজনের বিষয়ে কোনও সুস্পষ্ট নির্দেশ আসেনি, দাবি রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের।

বকেয়া পরীক্ষা নিয়ে নির্দেশাবলী পাঠায়নি কেন্দ্রীয় মন্ত্রক বা UGC, দাবি পার্থর

  • ছাত্রদের স্বার্থে উচ্চশিক্ষা দফতরের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে বর্তমান পরিস্থিতিতে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।

বকেয়া পরীক্ষা সম্পর্কে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক অথবা বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (UGC) পক্ষ থেকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সঙ্গে কোনও রকম যোগাযোগ করা হয়নি, দাবি করলেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

রবিবার শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, শিক্ষা মন্ত্রকের কাছে পড়ুয়াদের ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত করার একাধিক প্রস্তাব দিয়েছে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। কিন্তু এ সম্পর্কে কেন্দ্রীয় মন্ত্রক বা UGC-র তরফ থেকে বকেয়া পরীক্ষা আয়োজনের বিষয়ে কোনও সুস্পষ্ট নির্দেশ আসেনি।

রবিবার পার্থ বলেন, ‘আমি পরিষ্কার জানাচ্ছি, ছাত্রদের স্বার্থে উচ্চশিক্ষা দফতরের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে বর্তমান পরিস্থিতিতে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। এই বিষয়ে UGC বা কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের থেকে কোনও নির্দেশ পাওয়া যায়নি।’



আরও পড়ুন: আগামী সপ্তাহে বর্তমান ও নতুন শিক্ষাবর্ষ সম্পর্কে নিয়মাবলী স্থির করবে UGC


সেই সঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘সংবাদমাধ্যমের একাংশের কাছে আবেদন জানাচ্ছি, এমন কোনও সংবাদ প্রকাশ করবেন যা ছাত্রদের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করবে।’

সম্প্রতি এক বিজ্ঞপ্তিতে UGC-র তরফ থেকে বলা হয়েছে যে, বাকি থাকা পরীক্ষা আয়োজন করার বিষয়ে কমিশনের থেকে পাওয়া নিয়মাবলীর ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজগুলিকে পরিকল্পনা সাজাতে হবে।

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে এই বিষয়ে কমিশন নিয়োজিত কমিটিগুলির রিপোর্ট জানানোর জন্য একাধিক বার আবেদন জানানো হয়েছে।


আরও পড়ুন: কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা কবে, দ্রুত জানাবে ইউজিসি


গত ২৫ এপ্রিল এক বিবৃতিতে UGC জানায় যে বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে ছাত্রদের ভরতি, পঠনপাঠন ও পরীক্ষা সংক্রান্ত সমস্যা পর্যালোচনা করে দেখার জন্য দুটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। গত ২৪ এপ্রিল রিপোর্ট জমা দেওয়ার কথা ছিল কমিটিগুলির। কিন্তু তার পরে তিন দিন কেটে গেলেও কেন্দ্রের তরফে রাজ্য সরকারের সঙ্গে কোনও যোগাযোগ করা হয়নি বলে অভিযোগ বাংলার শিক্ষামন্ত্রীর।

এর আগেই বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে শুধুমাত্র ফাইনাল ইয়ার পড়ুয়াদের শেষ সেমেস্টারের পরীক্ষা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।তবে স্নাতক স্তরের অন্যান্য পরীক্ষা চলতি শিক্ষাবর্ষে নেওয়া হবে না বলেও ঘোষণা করেছেন মমতা।

বন্ধ করুন