বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘কৈলাস ঘনিষ্ঠ রাকেশ সিং ফাঁসিয়েছে’, CID তদন্তের দাবি কোকেনকাণ্ডে ধৃত পামেলার
পামেলা গোস্বামী। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)
পামেলা গোস্বামী। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)

‘কৈলাস ঘনিষ্ঠ রাকেশ সিং ফাঁসিয়েছে’, CID তদন্তের দাবি কোকেনকাণ্ডে ধৃত পামেলার

  • সেই অভিযোগ তুলে বিজেপির রীতিমতো অস্বস্তি বাড়ালেন পামেলা।

‘বাচ্চা মেয়ে’-কে ফাঁসানোর অভিযোগ তুলেছিল বিজেপির একাংশ। সেই ‘বাচ্চা মেয়ে’ তথা বিজেপির যুব মোর্চা নেত্রীর পামেলা গোস্বামীও একই অভিযোগ তুললেন। তবে তাঁর অভিযোগের তির গেরুয়া শিবিরের নেতা রাকেশ সিং দিকে।

শুক্রবার নিউ আলিপুর থানা থেকে ১০০ গ্রাম কোকেন-সহ পামেলাকে গ্রেফতার করা হয়। সঙ্গে প্রবীর দে নামে একজনকেও গ্রেফতার করে কলকাতা পুলিশ। গ্রেফতারির পর বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় অবশ্য ‘বাচ্চা মেয়ে’-কে ফাঁসানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন। তবে কিছুটা সতর্কতার সুরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ দাবি করেন, বিষয়টি নিয়ে ভালোভাবে জানেন না। তদন্ত ছাড়া কারও উপর দোষ দেওয়া ঠিক নয়। 

তারইমধ্যে শনিবার পামেলা, তাঁর রক্ষী, গাড়ির চালক এবং প্রবীরকে আলিপুর আদালতে তোলা হয়। আদালতে যাওয়ার সময় বাকি তিনজন চুপচাপ চলে যান। কিন্তু সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরা দেখেই চিৎকার করে ওঠেন পামেলা। দাবি করেন, রাজনৈতিক কারণে তাঁকে ফাঁসিয়েছেন রাজ্যে বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়ের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত রাকেশ। তাঁকে গ্রেফতারের দাবি তোলেন। তাৎপর্যপূর্ণভাবে সিআইডি তদন্তেরও দাবি তোলেন। 

যদিও রাকেশের দাবি, ঘটনার সঙ্গে তাঁর কোনও যোগ নেই। ন্যূনতম বিড়িও খান না। তবে পামেলার অভিযোগে দৃশ্যতই অস্বস্তির স্বর শোনা যায় তাঁর গলায়। প্রথমে জানান, বছরখানেক আগে মাদক নিয়ে মেয়ের বিরুদ্ধে লালবাজারে অভিযোগ জানিয়েছিলেন পামেলার বাবা। পরে অবশ্য দাবি করেন, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং পুলিশের চাপে বয়ান বদল করতে পারেন পামেলা। একইসঙ্গে জানিয়েছেন, পুলিশ তাঁকে ডাকলে যাবেন। অভিষোগ প্রমাণ করতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেওয়ারও দাবি করেছেন।

এমনিতে বন্দর এলাকায় যথেষ্ট ডাকাবুকো নেতা হিসেবে পরিচিত রাকেশ। ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের ঠিক আগে কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে যোগ দেন। তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ ছিল। প্রায়শই ‘গরম-গরম’ মন্তব্য করে থাকেন রাজ্য বিজেপির বস্তি উন্নয়ন শাখার আহ্বায়ক। গত জানুয়ারিতে দক্ষিণ কলকাতায় শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের যে মিছিল করার কথা ছিল, তা আয়োজনের দায়িত্বে ছিলেন বন্দর এলাকার নেতা। পামেলার সঙ্গে রাকেশের ‘দ্বন্দ্ব’ কোথায়, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

রাজনৈতিক মহলের মত, সেই অভিযোগ তুলে রীতিমতো বিজেপির অস্বস্তি বাড়ালেন পামেলা। একইসঙ্গে তাঁর কাছে কোকেন পাওয়া গিয়েছে বলে কার্যত স্বীকার করে নিলেন বিজেপির যুব মোর্চা নেত্রী। যদিও সে বিষয়ে পুলিশের তরফে কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

বন্ধ করুন